Date : 2024-05-26

ছত্তিসগড়ে এনকাউন্টারে নিকেশ ২৯ মাওবাদী

সঞ্জনা লাহিড়ী, সাংবাদিক – গত ২৭শে মার্চের পর আবারও মাওবাদী নিকেশ ছত্তিসগড়ে। ছত্তিসগড়ের কঙ্কের জেলায় মাওবাদীদের সঙ্গে সংঘর্ষ হয় নিরাপত্তা বাহিনীর। টানা ৫ ঘণ্টা এনকাউন্টারের পর ২৯ জন মাওবাদীর দেহ উদ্ধার হয় জঙ্গল থেকে। এক-৪৭, ইনসাস রাইফেল সহ বিপুল পরিমাণ অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে বলে বিএসএফ সূত্রে খবর। এনকাউন্টারে মৃত্যু হয় মাও নেতা শঙ্কর রাওয়ের। যার মাথার মূল্য ঘোষণা করা হয়েছিল ২৫ লক্ষ টাকা। সূত্রে মারফত খবর পেয়ে, ডিস্ট্রিক রিজার্ভ গার্ড ও বিএসএফ যৌথ অভিযান চালায় কঙ্কের জেলার বিনাগুন্ডা গ্রামের কাছের জঙ্গলে। জঙ্গলের গভীরে ঢুকতেই নিরাপত্তা বাহিনীর উপরে হামলা করে মাওবাদীরা।

গুলির পাল্টা জবাব দেয় নিরাপত্তা বাহিনীও। শুরু হয় সংঘর্ষ। টানা ৫ ঘণ্টা ধরে জঙ্গলের মধ্যে চলে গুলির লড়াই। মোট ২৯ জন মাওবাদীকে নিকেশ করা হয়। সংঘর্ষে আহত হয় ২ বিএসএফ জওয়ান সহ মোট ৩ জন। ২ জনের অবস্থা স্থিতিশীল হলেও, ডিআরজির সদস্যের অবস্থা বেশ আশঙ্কাজনক। আহতদের এয়ারলিফ্ট করে রায়পুরের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। স্থানীয় গ্রামবাসীদের সহযোগিতা ও পুলিশের গোয়েন্দা বাহিনীর তৎপরতায় এই অভিযানে সাফল্য মিলেছে। অভিযানে অপারেশনে স্যাটেলাইট ছবি ছাড়াও, নকশালদের গতিবিধি ক্রমাগত ট্র্যাক করতে ড্রোন ব্যবহার করা হয়। এছাড়াও ওই এলাকায় তল্লাশি চালানো হয়।

এনকাউন্টার অভিযানে সাফল্যের খবর পাওয়ার পরই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ তাঁর এক্স হ্যান্ডেলে অভিনন্দন জানিয়ে লেখেন, “আজ ছত্তিসগড়ে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে বিপুল সংখ্যক নকশাল নিহত হয়েছে। আমি সমস্ত নিরাপত্তা বাহিনীর কর্মীদের অভিনন্দন জানাই, যাঁরা সাহসিকতার সঙ্গে এই অপারেশন সফল করেছেন। যাঁরা আহত হয়েছেন, তাঁদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করছি। উন্নয়ন, শান্তি ও তরুণদের উজ্জ্বল ভবিষ্যতের সবচেয়ে বড় শত্রু নকশালবাদ। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে আমরা দেশকে নকশালবাদের কবল থেকে মুক্ত করতে বদ্ধপরিকর। সরকারের আক্রমণাত্মক নীতি এবং নিরাপত্তা বাহিনীর প্রচেষ্টার কারণে আজ নকশালবাদ সীমিত হয়েছে। শীঘ্রই ছত্তিসগড় এবং গোটা দেশকে সম্পূর্ণ নকশালমুক্ত করা হবে।”