Date : 2024-05-26

বুথের ভিতর উল্টোপাল্টা কিছু বলছেন না তো!, কমিশন কিন্তু সব শুনছে

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক ঃ ছাপ্পা ভোট, বুথ জ্যাম, রিগিং রোখার জন্য একাধিক পদক্ষেপ নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। তার জন্য একশো শতাংশ বুথে যেমন কেন্দ্রিয় বাহিনী মোতায়েন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, তেমনি প্রতিটি বুথকেই ওয়েব কাস্টিং এর আওতায় আনা হয়েছে। এই ওয়েব কাস্টিং এর সময় কিন্তু শুধুই যে ছবি দেখা যাবে তা নয়, আপনি কি কথা বলছেন সেটাও রেকর্ড হয়ে যাচ্ছে।

এবারের লোকসভা নির্বাচনকে রিগিং, ছাপ্পা হীন করতে একের পর এক পদক্ষেপ করেছে নির্বাচন কমিশন। আমাদের রাজ্য পশ্চিমবঙ্গের জন্য এক প্রকার নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারা। এবারের নির্বাচনে যে একশো শতাংশ বুথকে ওয়েব কাস্টিং এর আওতায় আনা হচ্ছে সেই ওয়েব কাস্টিং এর ক্ষেত্রেও কিছু কৌশল গ্রহণ করেছে কমিশন। তারমধ্যে যেটা সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ তা হলো অত্যাধুনিক এইসব ক্যামেরায় ছবির পাশাপাশি ধরা থাকবে বুথের ভিতর কে কি বলছে না বলছে, সেসব কথাও। আগে সি সি ক্যামে শুধু ছবি ধরা থাকতো। তবে এবার বুথের ভিতরকার সব শব্দ‌ও ক্যামেরায় ধরা থাকছে। ফলে বুথের ভিতর কথা বলার সময় সাবধান। এছাড়া প্রথম দফার ভোটে ওয়েব কাস্টিং এর জন্য যেসব সি সি ক্যামেরা (ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা) ব্যবহার করা হয়েছে, সেগুলো পুনরায় ব্যবহার করা হবে তৃতীয় দফার ভোটে। দ্বিতীয় দফার ভোটে একদম নতুন ক্যামেরা ব্যবহার করা হচ্ছে। এই ক্যামেরাগুলোই ফের ব্যবহার করা হবে চতুর্থ দফার ভোটে। এমনটা করার কারণ হিসাবে কমিশন সূত্রে জানা যাচ্ছে যে এক দফা থেকে পরের দফায় ক্যামেরা পাঠানোর আগে ওই ক্যামেরার সব তথ্য সংগ্রহ করে রাখতে হয়। পাশাপাশি এক কেন্দ্রে ইনস্টল করা ক্যামেরা খুলে পরের কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়ার জন্যেও সময় প্রয়োজন। প্রসঙ্গত দ্বিতীয় দফায় দার্জিলিং কেন্দ্রের মোট ১,৯৯৯ টি বুথের প্রতিটিতে, বালুরঘাট কেন্দ্রের ১,৫৬৯ টি বুথের প্রতিটিতে এবং রায়গঞ্জ কেন্দ্রের ১,৭৩০ টি বুথের প্রতিটিতেই থাকছে অত্যাধুনিক এইসব সি সি ক্যামেরা।