Date : 2024-05-26

আগামী কাল অসমে তৃণমূল সুপ্রিমো। কোথায় সভা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক ঃ পশ্চিমবঙ্গে একের পর এক নির্বাচনী প্রচার সভা করার ফাঁকে এক দিনের সফরে বুধবার অসমে যাচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে দলীয় প্রার্থীর সমর্থনে শিলচরে সভা করার পাশাপাশি একটি সাংবাদিক সম্মেলন করবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

রাজ্যের গন্ডি ছাড়িয়ে লোকসভা নির্বাচনের এবার ভিন রাজ্যেও প্রার্থী দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। উত্তর পূর্বের অসম, মেঘালয়ের পাশাপাশি উত্তর প্রদেশেও একটি আসনে লড়াই করছে তারা। এই তিনটি রাজ্য থেকেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে নির্বাচনী প্রচারে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে। তবে আপাতত বুধবার অসমে একটি সভা করতে চলেছেন তিনি।

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে অসমের চারটি আসনে প্রার্থী দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস। এই চারটি আসন হলো লখিমপুর, বরপেটা, কোকরাঝাড় ও শিলচর। এই চার আসনের প্রার্থীরা হলেন যথাক্রমে ধনকান্ত চেটিয়া, আবদুল কালাম আজাদ, গৌরিশংকর সারানিয়া ও রাধেশ্যাম বিশ্বাস। বুধবার এই রাধেশ্যাম বিশ্বাস এর সমর্থনে শিলচর টাউন ক্লাবের মাঠে নির্বাচনী সভায় উপস্থিত থাকবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সম্পূর্ণ অসমে যখন প্রায় ৩৫ শতাংশ বাঙালির বাস, সেখানে এই বরাক উপত্যকায় অবস্থিত শিলচরে প্রায় ৯৯ শতাংশের বেশি বাঙালি রয়েছেন। ফলে এই আসনটার দিকে বিশেষ নজর রয়েছে তৃণমূলের। জোড়াফুলের প্রার্থী রাধেশ্যাম বিশ্বাস ২০১৪ থেকে ২০১৯ সাল পর্যন্ত শিলচরের পার্শ্ববর্তী করিমগঞ্জ আসনের সাংসদ ছিলেন। তখন অবশ্য তিনি বদরুদ্দিন আজমলের দল করতেন। ২০১৯ এর নির্বাচনে তিনি হেরে যান। মাঝে কংগ্রেস ঘুরে এবার তিনি তৃণমূলে। শিলচর আসনটি দীর্ঘদিন ধরে কংগ্রেসের দখলে ছিলো।‌ বলা ভালো কংগ্রেসের সন্তোষ মোহন দেব ছিলেন এখানকার শেষ কথা। সন্তোষ মোহন দেবের পর তাঁর মেয়ে সুস্মিতা দেব ও এই শিলচর থেকেই সাংসদ হয়েছিলেন। এবার‌ও এই আসনে তিনি‌ই ছিলেন যোগ্য প্রার্থী। কিন্তু ডিলিমিটেশন এর কারণে বর্তমানে আসনটি সংরক্ষিত। ফলে সুস্মিতা দেব কে এরাজ্য (পশ্চিমবঙ্গ) থেকে রাজ্যসভায় পাঠিয়েছে তৃণমূল। শিলচর আসনটি এই মুহূর্তে রয়েছে বিজেপির দখলে। এখানকার সাতটি বিধানসভার মধ্যে ৫ টি রয়েছে শাসক দল বিজেপির দখলে। বাকি দুটি কংগ্রেসের। এখানে ৯৯ শতাংশের বেশি বাঙালি থাকলেও, স্থানীয় অনেকের মত তৃণমূল কংগ্রেস মুলত দ্বিতীয় হ‌ওয়ার লড়াইতে রয়েছে। তবে সুস্মিতা দেব বা রিপুন ভোরা অবশ্য ভালো করার জন্য জান লড়িয়ে দিচ্ছেন বলেই মত অসম তৃণমূলের।