Date : 2020-12-01

UFO আকারের জনমানবশূণ্য এই ভূতুড়ে বাড়িগুলোয় টের পাওয়া যায় “তেঁনাদের” অস্তিত্ব…

ওয়েব ডেস্ক: ভূত নামক এই বস্তুটি নিয়ে প্রতিটা মানুষেরই চিন্তার শেষ নেই। তেনার অস্তিত্ব আদৌ আছে কি নেই, বিজ্ঞানও এই সর্বাধিক চর্চিত প্রশ্নের উত্তর খুঁজে চলেছে। তবে তেনাদের অস্তিত্ব আছে কি নেই তা জানা না থাকলেও, তাইওয়ানে এমন একটি শহর আছে যাকে সাই, ভূতুড়ে শহরের (Ghost Town) আখ্যা দিয়েছে। না, কোনও ভূত দেখা যায়নি, তবে তাইওয়ানের, ওয়ানি নামক শহরটির বাড়িগুলি বড়ই অদ্ভুত। তাদের আকার ইউ.এফ.ও-র মতো। শহরের লোকেরাই দিনের বেলাতেও এই শহরে পা রাখার সাহস পায় না। ১৯৭০ সাল থেকেই এই শহরটি শুনশানভাবেই পড়ে আছে। এখানের সব বাড়িগুলির আকারই ডিমের শেপ বা ফ্লাইং সশার বা চৌকো বা বক্সের মতো। এই বাড়িগুলো নাকি বানিয়েছিলেন আর্কিটেকচার মাত্তি সুরোনেন। কিন্তু এই আর্কিটেকচার কোথা থেকে এসেছিলেন বা কবে কিভাবে বানিয়েছিলেন এই বাড়িগুলি তা কেউ জানে না। এমন অদ্ভূতুড়ে শহরটিতে দেখা মিলবে না একজন মানুষেরও। কেনইবা সাতের দশক থেকে খালি পড়ে আছে এই শহর তা কেউ জানে না। এই নতুন মডেলের বাড়িগুলি তৈরি করতে তখনকার সময়ও খরচ হয়েছিল প্রচুর টাকা। তাই হয়ত লোকে কিনতে পারেনি। তবে শহরের বাইরের আশপাশের মানুষদের মতে, এই বাড়িগুলো নাকি আদতে হানাবাড়ি! এই শহর তৈরির সময় নাকি একাধিক অলৌকিক ঘটনা, দুর্ঘটনা, আত্মহত্যার মতো ঘটনা ঘটেছে। তখন থেকেই শহরটি অভিশপ্ত! কোনওদিন তাইওয়ানে ঘুরতে গেলে ভুলবেন না যেন এই গা ছমছমে শহরটি একবার ঘুরে দেখতে।