Date : 2019-10-24

১০ বছর সময় দেওয়া হয়েছিল বাঁচার জন্য, জানালেন সুপার ৩০ র আসল নায়ক

ওয়েব ডেস্ক: সুপার ৩০। হৃত্বিক রোশন অভিনীত এই সিনেমাই এখন সবার মুখে মুখে।এই ছবি কেমন হবে তা দেখতে অনেকেই মুখিয়ে আছেন সিনেমাহলে যাওয়ার জন্য।কিন্তু ছবির নেপথ্য মূল নায়ক যিনি সেই বাস্তবের আনন্দ কুমারের সাথে একটু আলাপ করিয়ে নেওয়া যাক। যার জীবনের ওপরই তৈরি এই সিনেমা সেই আনন্দ কুমারের জীবন কিন্তু কখনই সহজ ছিল না।অ্যকোস্টিক নিউরোমা নামক জটিল রোগে আক্রান্ত হওয়া এই শিক্ষক কখনই হার মানেননি জীবনের চড়াই উতরায়ে।

৪৬ বছর বয়সী এই বিহারের এই শিক্ষককে হাসপাতালের ডাক্তাররা সময় দিয়েছিলেন মাত্র ১০ বছর।তবে তাতে ভেঙে পড়েননি তিনি।ভেঙে না পড়ে গরীব পিছিয়ে পড়া ছাত্রদের জন্য তৈরি করেন সুপার ৩০ নামের প্রোগ্রাম।যেখানে প্রতি বছর আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া ৩০ জন বুদ্ধিমান ছাত্রছাত্রীদের জয়েন্টে এবং আইআইটি পরীক্ষার কোচিং দেওয়া শুরু করেন তিনি।আর তারপর থেকেই সাফল্য আসতে থাকে একের পর এক।যার রেশ চলছে এখনও।

নিজের বায়োপিক তৈরির অফার তিনি বিগত ৯ বছর ধরে অনেকের কাছ থেকেই পেয়েছেন।কিন্তু রাজি হননি।ডাক্তারদের কথা অনুযায়ী হাতে সময় কম তাই শেষে পরিচালক বিকাশ বহেলের কথাতেই রাজি হয়ে যান আনন্দ কুমার।তবে বেঁচে থাকতে থাকতে নিজের বায়োপিক রিলিজ হওয়ায় যথেষ্ট খুশি বিহারের এই শিক্ষক।

২০০২ সালে শুরু হওয়া আনন্দ কুমারের সেই জীবনযুদ্ধ অবশেষে রুপোলি পর্দায় দেখা মিলবে ১২ জুলাই।বিশ্বে ৭১ টি দেশে রিলিজ করবে এই সিনেমা।

আরও পড়ুন: আদৌ কি আপনারা সাংবাদিক, নাকি ফ্রিতে খাবার খেতে আসেন?” রুদ্রমূর্তি কঙ্গনার

কুমারের বক্তব্য ছিল, “ছবির নির্মাতারা চেয়েছিলেন যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আমি যেন ছবি তৈরির অনুমতি দিই, জীবন ও মৃত্যু কখন আসে তা বলা যায় না তাই নিজে বেঁচে থাকতে থাকতেই ছবিটি দেখে যেতে চেয়েছিলাম” বলে জানান এই শিক্ষক।রুপোলি পর্দার সুপার ৩০ কেমন হয় তা দেখতে আপনাকে অবশ্যই যেতে হবে সিনেমা হলে।