Date : 2021-03-08

অজানা জন্তুর হামলায় আতঙ্কে ঝাড়গ্রাম, মিলল পায়ের ছাপ….

ওয়েব ডেস্ক: অজানা জন্তুর আতঙ্কে কাঁপছে ঝাড়গ্রামের সাঁকরাইল। হামলা চালিয়ে সাতটি ভেড়া মেরে পালিয়ে যায় জন্তুটি। বনদফতরের দাবি হায়না অথবা গ্রে উলফ জাতীয় প্রাণী হামলা চালিয়েছে গ্রামে। রবিবার সকালে ওই এলাকায় গিয়ে ভেড়ার পায়ের ছাপ সংগ্রহ করে বনদফতরের কর্মীরা। জঙ্গলের ঘনত্ব বাড়ায় এই ধরনের জন্তুর আগমন বাড়ছে বলে জানিয়েছে বনদফতর। প্রসঙ্গত, বনের পাতা কুড়িয়েই জীবিকা নির্বাহ করেন ওই অঞ্চলের গ্রামের মানুষ। কিন্তু জঙ্গলে এই ধরনের প্রাণীর হামলার ফলে গ্রামবাসীদের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে।

আগে এই আঞ্চলে ছিল হাতির আতঙ্ক এখন তার সঙ্গে এই ধরনের মাংসাশী প্রাণীর আগমন হওয়ায় চিন্তায় পড়েছে এলাকার মানুষ। এদিকে বন দফতরের কর্মীদের কথায় এলাকায় জঙ্গলের ঘনত্ব বাড়ার ফলে বন্যপ্রাণের আনাগোনা বেড়েছে।

আরও পড়ুন: তিস্তার বাঁধে লুকিয়ে ছিল “রিভার মনস্টার”

নেকড়ে সজারু থেকে শুরু করে ময়াল, ময়ূর সংখ্যায় অনেক বেড়েছে। কয়েক মাস আগেই বাঘের আতঙ্কে ঘুম কেড়েছিল এলাকার মানুষের এবার ফের অজানা হিংস্র জন্তুর তাণ্ডবে তারা ভীত। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে বন বিভাগে।

গত কয়েক মাসে ঝাড়গ্রাম, লোধাশুলি,‌ সাঁকরাইলের কিছু এলাকায় নেকড়ে বাঘের হামলায় আহত হন কয়েক জন বাসিন্দা।বন বিভাগের লোকজন প্রথমে তাতে আমল দিতে না চাইলেও ‌পরে দেখা যায় সেটা সত্যি বাঘ। সেটিকে পিটিয়ে মেরেছিল শিকার করতে ‌যাওয়া কয়েক জন। ঝাড়গ্রামের ওই গ্রামে অজানা জন্তুটি কে ধরার জন্য ‌দুটো খাঁচা পাতা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন বন বিভাগের আধিকারিকরা। যদিও এই অজানা জন্তুটিকে ধরার জন্য ইতিমধ্যে খাঁচা পেতেছে বনবিভাগের কর্মীরা।