Date : 2021-03-06

আশা-আশঙ্কার মধ্যেই উপত্যকায় শান্তিতে পালিত হচ্ছে ঈদুজ্জোহা….

ওয়েব ডেস্ক: কড়া নজরদারীর মধ্যে দিয়ে জম্মু ও কাশ্মীরে ইদুজ্জোহা পালন। ঈদের কারণে আজ সকাল থেকেই কাশ্মীরে শিথিল হয়ে গেছে ১৪৪ ধারা। তবে শান্তি বজায় রাখার জন্য চলছে সেনা বাহিনীদর নজরদারি। ৩৭০ ধারা বাতিল করার পর শুক্রবার সকালে উপত্যকায় কিছুটা শান্তি ফিরেছে। ধীরে ধীরে খুলতে শুরু করেছে স্কুল-কলেজ, দোকান-পাট।

মানুষ যাতে ঈদের কেনাকাটা করতে পারে। রবিবার সকাল থেকেই তাই শিথিল করে দেওয়া হয়েছিল ১৪৪ ধারা। রবিবার কাশ্মীরের বিভিন্ন জায়গায় খোলা ছিল ব্যাঙ্ক, এটিএম। শ্রীনগরের জেলাশাসক শাহিদ চৌধুরী টুইট করে জানিয়েছেন, “আমরা চাইছি সাধারণ মানুষ ইদ উদযাপন করুক।

আরও পড়ুন : আরও কোনঠাসা পাকিস্তান,কাশ্মীর ইস্যুতে ভারতের পাশে রাশিয়া ও সৌদি আরব

সেইজন্য বেশ কিছু সময়ের জন্য নিরাপত্তার কড়াকড়ি কমিয়ে দেওয়া হয়েছিল। আবার পরিস্থিতি যাতে হাতের বাইরে বেরিয়ে না যায়, সে দিকেও খেয়াল রাখতে হচ্ছে। ইমামদের সঙ্গেও আমার কথা হয়েছে। তাঁদের বলা হয়েছে মসজিদে নমাজের ব্যবস্থা করতে।”

সোমবার ঈদের আগে মোবাইল, ইন্টারনেট সহ অন্যান্য যোগাযোগের মাধ্যমের উপর থেকে সাময়িক ভাবে তুলে নেওয়া হয় নিষেধজ্ঞা। শনিবার কংগ্রেসের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠক শেষে রাহুল গান্ধী প্রেস কন্ফারেন্স করে জানান, কাশ্মীরের পরিস্থিতি ক্রমশ খারাপ হচ্ছে।

আরও পড়ুন : কাশ্মীর ইস্যুতে হস্তক্ষেপ না করে উভয়পক্ষকে সংযত থাকার বার্তা রাষ্ট্র সংঘের

বিভিন্ন জায়গায় অশান্তি ছড়িয়ে পড়ছে। কাশ্মীবরের পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভালকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। সোমবার ৩৭০ ধারা খারিজ হওয়ার পর তিনি কাশ্মীরে চলে যান অজিত দোভাল।

সেখানে পৌঁছে তিনি সিআরপিএফ ও রাজ্যপালের সঙ্গে কথা বলেন। এলাকার সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথাও বলেন। ৩৭০ধারা বিলোপের পর কাশ্মীরের মানুষের ভাবাবেগে যাতে আঘাত না লাগে তার জন্য ঈদের আগেই ১৪৪ ধারা শিথিল করা হয়। তবে অশান্তিপ্রবণ অঞ্চলগুলির একটি তালিকা তৈরি করা হয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনীর তরফে। তার মধ্যে আছে সোপিয়ান, পুলওয়ামা, অনন্তনাগ ও সোপোর। এই অঞ্চলগুলিতে অতিরিক্ত নিরাপত্তা রাখা হয়েছে।