Date : 2022-05-25

সমঝোতা এক্সপ্রেসের পর থর এক্সপ্রেসের গতিরোধ করল পাকিস্তান…

ওয়েব ডেস্ক: কাশ্মীরের বিশেষাধীকার বাতিল করার অসন্তোষ আর মিটছে না। ভারতের সঙ্গে সব রকম কূটনৈতিক অসহযোগিতা তৈরি করতে একের পর এক পদক্ষেপ নিয়েই চলেছে পাকিস্তান। আকাশ পথে আংশিকভাবে ভারতের প্রবেশ নিসিদ্ধ, ওয়াঘা থেকে ভারতের বর্ডার পার করতে না চেয়ে মাঝ পথেই সমঝোতা এক্সপ্রেস বাতিলের পর এবার ভারত পাকিস্তান থর এক্সপ্রেস বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাক রেল বোর্ড। পাক রেল মন্ত্রী শেখ রশিদ আহমেদ জানিয়ে দিলেন যোধপুর থেকে করাচীগামী থর এক্সপ্রেস চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হবে। এর ফলে ৩৭০ ধারা বাতিলের পর দু দেশের সম্পর্ক আরও খারাপ হল বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

নয়াদিল্লি থেকে লাহোরগামী সমঝোতা এক্সপ্রেস নিয়ে পাকিস্তানের ট্রেন চালকরা ভারতে প্রবেশ করতে অসম্মতি জানায়। যার ফলে প্রায় ৪ ঘন্টা ওয়াঘা সীমান্তে আটকে থাকে লাহোর-দিল্লি সমঝোতা সমঝোতা এক্সপ্রেস। শেষে দীর্ঘ চারঘন্টা পর ভারত থেকে একটি ইঞ্জিন গিয়ে সামঝোতা এক্সপ্রেসকে নিয়ে আসে সীমান্ত লাগোয়া আটারি স্টেশনে। আজ দুপুরে প্রায় ৪ ঘন্টা লেটে ১১০ জন যাত্রীকে নিয়ে সমঝোতা এক্সপ্রেস দিল্লি পৌঁছায়।

আরও পড়ুন : “সমঝৌতা” শেষ! ট্রেন নিয়ে ওয়াঘা সীমান্ত পার করবে না পাকিস্তান

পাক রেলমন্ত্রী বলেন,’ সমঝোতা এক্সপ্রেসের চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেলমন্ত্রক। সপ্তাহে ২ বার ট্রেনটি দুদেশের মধ্যে যাতায়াত করত। যারা এই ট্রেনের টিকিট আগেই কিনে ফেলেছেন তারা সেই টাকা ফেরত পাবেন।’ এদিকে এদিন থর এক্সপ্রেস বাতিল করার সিদ্ধান্তে বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র রবীশ কুমার জানান, ‘পাকিস্তান এক তরফাভাবে থর এক্সপ্রেস বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এনিয়ে আমাদের সঙ্গে কোনও আলোচনা হয়নি।

পাকিস্তান যা করছে তাতে দুদেশের সম্পর্ক আরও উত্তপ্ত হচ্ছে। প্রসঙ্গত তিনি আরও একবার পাকিস্তানকে হুঁশিয়ারি দিয়েই বলেন, ৩৭০ ধারা বাতিল করা দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়। এর জেরে পাকিস্তান যা করছে তা সম্পূর্ণ একতরফা। অযথা উত্তেজনা না তৈরি করে ভারতের বিষয় পাকিস্তান নাক না গলালেই ভালো বলে তিনি জানান।