Date : 2019-10-17

রাজীবের আগাম জামিনে ধাক্কা বারাসত কোর্টে, গ্রেফতারি পরোয়ানার আবেদন করতে পারে সিবিআই!…

কলকাতা: আগাম জামিনের আবেদন জানিয়ে বারাসত কোর্টের দ্বারস্থ হয়েও কিছুই সুবিধা করতে পারেননি রাজীব কুমার। শেষমেশ জেলা জজ কোর্টে তাঁর আগাম জামিনের আবেদন গৃহীত হল। সূত্রের খবর, জেলা দায়রা বিচারক মহম্মদ রশিদির এজলাসে আজই এই মামলার শুনানি শুরু হওয়ার কথা। উল্লেখ্য, এদিন নির্ধারিত সময়ে বারাসত আদালতে সিবিআইয়ের আইনজীবী ও রাজীব কুমারের কৌশলী উপস্থিত ছিলেন। কিন্তু বিশেষ আদালতের বিচারপতি মামলার আবেদন গ্রহণ করতে অস্বীকার করে বলেন, এটা বারাসত আদলতের এক্তিয়ার ভুক্ত নয়।

এরপরেই বিকল্প পথ অনুসন্ধান করতে শুরু করেন রাজীব কুমারের আইনজীবী। প্রসঙ্গত, সারদাকাণ্ডের তদন্তের জন্য যে বিশেষ কমিটি বা ‘সিট’ গঠন করা হয়েছিল সেই কমিটির শীর্ষে ছিলেন প্রাক্তন কলকাতা পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে সারদাকাণ্ডের তদন্তভার দেওয়া হয় সিবিআইকে। সারদাকাণ্ডে রাজ্যপুলিশের এই বিশেষ তদন্তকারী কমিটির বাকি সদস্যরা সিবিআইয়ের তদন্তে সহায়তার কাজ করলেও তদন্তকারী কমিটির সর্বোচ্চ পদাধিকারী রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে একাধিকবার নানান উপায়ে সিবিআইয়ের জেরা এড়িয়ে যাওয়ার অভিযোগ ওঠে। এমনকি তিনি কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকে সারদাকাণ্ডের তদন্তে কোন রকম সহায়তা করছেন না বলে অভিযোগ করা হয় সিবিআই তরফে।

আরও পড়ুন : শিথিল রাজীবের রক্ষাকবজ, বাড়িতে সিবিআই, এরপর কি

যদিও ফেব্রুয়ারি মাসে শিলং-এ সিবিআইয়ের বিশেষ টিম তাঁকে ম্যারাথন জেরা করে। কিন্তু এরপর থেকে তিনি আর কোন ভাবেই সিবিআইয়ের সম্মুখীন হতে চাইছেন না। কলকাতা হাইকোর্ট রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ সংক্রান্ত রক্ষাকবচ তুলে নিলে ১৩ সেপ্টেম্বর কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিজিও কমপ্লেক্সে হাজিরার নির্দেশ দেয় প্রাক্তন কলকাতা পুলিশ কমিশনারকে। ছুটিতে আছেন জানিয়ে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার কাছে রাজীব কুমার ১ মাসের সময় চান। এদিকে সারদা মামলার অন্যতম সাক্ষী হিসাবে সিবিআই তাঁকে হন্যে হয়ে খুঁজে বেড়াচ্ছে। সিজিও কমপ্লেক্সে প্রাক্তন সিপি-কে বার বার হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হলেও তিনি তা এড়িয়ে যাচ্ছেন।

আরও পড়ুন : সিজিও কমপ্লেক্সে রাজীব কুমার

বারাসত আদালত রাজীবের মামলা শুনতে অস্বীকার করে দেওয়ার পর জেলা জজ আদালতে দ্বারস্থ হওয়ার কথা ভেবেছিলেন রাজীব কুমার। কিন্তু সেক্ষেত্রেও একটি ধোঁয়াশা তৈরি হয়। কারণ রাজীব কুমারের মামলা ইতিমধ্যেই আলিপুর আদালতে বিচারাধীন। সেক্ষেত্রে জেলা জজ আদালত আদৌ এই মামলা গ্রহণ করবে কিনা, তা নিয়ে সংশয়ে ছিলেন আইনজীবীরা। আজই রাজীব কুমারের আগাম জামিনের আবেদন ফিরিয়ে দেয় বারাসত বিশেষ আদালত। আগাম জামিনের আবেদন শোনার এক্তিয়ার নেই, স্পষ্টভাবে জানিয়ে দেয় বিশেষ আদালত।

অন্যদিকে সূত্রের খবর, রাজীব কুমারের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে তাঁকে নিজেদের এক্তিয়ারে নিতে সিবিআই কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থও হতে পারে। কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার এই পদক্ষেপে রাজীব কুমারের আইনি লড়াই আরও কঠিন হল বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহলের একাংশ।তবে এখনও অধরা কলকাতার প্রাক্তন নগরপাল। এমনকী রাজ্যের গোয়েন্দা বিভাগের দায়িত্বে থাকা দুঁদে পুলিশ অফিসারের খবর নাকি জানেন না রাজ্য পুলিশের খোদ ডিজি বীরেন্দ্র। সিবিআইকে চিঠি লিখে এমনটাই জানিয়েছেন তিনি। প্রসঙ্গত, এই মুহুর্তে রাজীব কুমার কোথায় আছেন তা জানার জন্য গতকাল নবান্ন পৌঁছে গিয়েছিল সিবিআইয়ের একটি টিম। কিন্তু সেখানেও কোন খবর মেলেনি তাঁর।