Date : 2022-01-26

‘লাভ অ্যাট ফার্স্ট সাইট’, কথা সত্যি করে প্রথম দেখার ৪ ঘন্টায় বিয়ে!……

হুগলি: সোশ্যাল মিডিয়ার যুগ, তাই দূর দূরান্তের মানুষের সঙ্গেও সহজেই যোগাযোগ হয়ে যায়। প্রথমে কথা পরে হয়তো দেখা, সাক্ষাৎ, যোগাযোগ আরও ঘনিভূত হয়। কিন্তু সেটা সময় সাপেক্ষ। তাই কি? ডিজিটাল যুগে সব কিছুই হয় তাড়াতাড়ি। তাই প্রথম দেখার আড়াই ঘন্টার মধ্যেই পরিনতি পেল প্রেম। মা দুর্গাকে সাক্ষী রেখে দুই যুগল বিয়ে করলেন অষ্টমীর রাতেই। ভাবছেন এমনও হয়! হ্যাঁ, সোশ্যাল মিডিয়ায় জুলাই মাস থেকে যোগাযোগ গড়ে ওঠে মিউচুয়াল ফ্রেন্ডের মাধ্যমে। হুগলির হিন্দ মোটরের যুবক সুদীপ ঘোষাল এবং শেওড়াফুলির প্রীতমা বন্দ্যোপাধ্যায় কথা বলতেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। তবে দুর্গাপুজোর অষ্টমীর আগে তাদের দেখাও হয়নি। সেই জুলাই থেকে আগস্টের মধ্যে কেউ কারোর মুখোমুখি হয়নি। আর দেখা মাত্রই বিয়ে করে নিলেন দুজনে! কি করে?

জিজ্ঞাসা করায় হেসে ফেললেন বছর ৩৩-এর যুবক সুদীপ।একটি ওষুধ প্রস্তুতকারী সংস্থার সঙ্গে পেশাগত কারণে যুক্ত সুদীপ। আর প্রতিমা স্নাতক উত্তীর্ণ হয়ে একটি বুটিক চালান। বৃহস্পতিবার তিনি জানান, অষ্টমীর দিন সন্ধ্যায় বন্ধুদের সঙ্গে কলকাতায় গিয়েছিলেন। সন্তোষ মিত্র স্কোয়ারের পুজোয় যাওয়ার পথে কিছু না ভেবেই তিনি ফোন করেছিলেন প্রীতমাকে। তখনই জানতে পারেন যে, প্রীতমাও বন্ধুদের সঙ্গে সন্তোষ মিত্র স্কোয়ারেই রয়েছেন।

আরও পড়ুন : থুড়ি পরোয়া! ফতোয়া উড়িয়ে সাবেকি সাজে সিঁদুর খেলায় মাতলেন নুসরত

তখনই তাঁরা ঠিক করেন, পুজো মণ্ডপের কাছেই দেখা করবেন, প্রথম বার। তারপরেই যা ঘটল তা যেন বলিউডের ছবিকেও হার মানায়। মা দুর্গাকে সাক্ষী করে বিয়ে করে প্রতিমাকে সেই রাতেই ঘরে তোলেন সুদীপ। বাড়ির লোক হতবাক হলেও নতুন বুকে দেখে আনন্দে আটখানা শ্বশুর আর শ্বাশুড়ি। বিয়ে খাওয়া-দাওয়া হুল্লোড়ের পাশাপাশি তাঁর একটাই চিন্তা, আগামী জীবনে সুখী হবেন তো তারা?