Date : 2019-11-18

অসামরিক বিমানবন্দরে সুখোই, যুদ্ধ মহড়া নিয়ে জল্পনা….

কলকাতা: উত্তর ও উত্তর-পূর্ব ভারতে শক্তি বাড়াচ্ছে প্রতিবেশী দেশ। তাই যে কোন পরিস্থিতি মোকাবিলা করতেই উত্তর ও উত্তর-পূর্ব ভারতে অসামরিক বিমানবন্দরে যুদ্ধ মহড়া দিতে দেখা গেল সামরিক বিমানকে। অসমের তেজপুর ঘাঁটি থেকে এই মহড়ার জন্য আনা হয়েছে ৩টি সুখোই-৩০ এমকেআই। তেজপুরের ফ্লাইট কমান্ডার শোভিত মিশ্র জানান, প্রয়োজনে যাতে হলে দ্রুত অসামরিক বিমান ঘাঁটি ব্যবহার করা যায়, তার প্রস্তুতি হিসেবেই এই প্রথম কলকাতা ও গুয়াহাটিতে সুখোই আনা হল। অসামরিক বিমানবন্দরে অসামরিক এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোল বা এটিসি-র হাতে বিমান ওঠানামার নিয়ন্ত্রণ থাকে।

রানওয়ে ও ট্যাক্সি এলাকার ভারও থাকে অসামরিক ব্যক্তিদের উপরে। যাত্রিবাহী বিমানের সঙ্গে যুদ্ধবিমানের উড়ানে অনেক ফারাক থাকে। তাই এ বারের মহড়ায় অসামরিক কর্মী, এটিসি-র সঙ্গে বায়ুসেনার বোঝাপড়াও দেখে নেওয়া হল। ১৯৭১ সালে বাংলাদেশ যুদ্ধের সময় মহড়ার জন্য কলকাতা বিমানবন্দরে আনা হয় সুখোই-৩০ এমকেআইয়ের বিমান।

আরও পড়ুন : টালাব্রিজ জটের জেরে বন্ধ ৩৫০টি বেসরকারি বাস পরিষেবা, চুড়ান্ত ভোগান্তি নিত্যযাত্রীদের

কলকাতা বিমানবন্দরকে তখন বায়ুসেনার ঘাঁটি হিসাবে ব্যাবহার করা হত। এখান থেকেই বাংলাদেশের সীমান্তে গিয়ে বোমা ফেলে আসত সুখোই। বায়ুসেনার একাংশের মত, চিনের কথা ভেবেই হয়তো উত্তর ও উত্তর-পূর্ব ভারতে বায়ুসেনার যুদ্ধ মহড়া চলছে। বুধবার রাতে অসামরিক বিমানবন্দরে হঠাৎ-ই এই মহড়া দিতে দেখে বেশ অবাক হন যাত্রীরা। যে কোন পরিস্থিতিতে যেন অসামরিক বিমান পরিষেবা চালু থাকে সেই দিকে তাকিয়েই এই মহড়া বলে মনে করছেন বায়ু সেনা।