Date : 2019-11-18

রাজ্যের পরিচয় হারিয়ে জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ এখন পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল…

ওয়েব ডেস্ক: আর রাজ্য নয় এখন কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল জম্মু-কাশ্মীর। খাতায় কলমে আগে থেকেই নির্ধারিত হয়েছিল। বুধবার ঘড়িতে রাত ১২ টা বাজতেই লাদাখ ও জম্মু-কাশ্মীর পৃথক রাজ্য হিসাবে আত্মপ্রকাশ করল। অনারম্বরেই দুই কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের উপ-রাজ্যপাল বৃহস্পতিবার শপথ গ্রহণ করলেন। উপ রাজ্যপাল হিসাবে জম্মু-কাশ্মীরের শপথ নিলেন গিরিশ চন্দ্র মুর্মু এবং লাদাখের উপরাজ্যপাল হিসাবে শপথ নিলেন রাধাকৃষ্ণ মাথুর। উপত্যকা জুড়ে রয়েছে কড়া নিরাপত্তা। ৩৭০ অনুচ্ছেদ বিলোপের পর জম্মু-কাশ্মীর শুধুই বিশেষ অধিকার হারায়নি বরং রাজ্য হিসাবেও নিজের পরিচয় হারাল। পূর্ব ঘোষণা মতোই ৩০ অক্টোবর মধ্যরাত থেকে লাদাখ ও জম্মু-কাশ্মীর পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মর্যাদা পেল। ভারতের কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের সংখ্যা ৭ থেকে বেড়ে হল ৯টি।

জঙ্গিদের গুলিতে কাশ্মীরে মৃত ৫ বাঙালি শ্রমিক, মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করে হেরে গেল আরও ১

বিশেষ অধীকার বিলোপ করে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসাবে আত্মপ্রকাশ করার মাধ্যমে কাশ্মীরের উন্নয়ন সম্ভব বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। সর্দার বল্লভ ভাই প্যাটেলের ১৪৪ তম জন্মদিবসে কেন্দ্রীয় সরকার দেশ জুড়ে একতা দিবস পালন করেছে। আসমুদ্র হিমাচলকে উন্নয়নের সামিয়ানায় এনে দেশকে আরও দুই কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল উৎসর্গ করা হল। প্রসঙ্গত, গত ৫ আগস্ট সংসদে দীর্ঘ তর্ক-বিতর্ক ও ভোটাভুটির পর ৩৭০ ধারা ও ৩৫-এ বিলোপ করা হয়। তবে বিরোধীদের আপত্তি থাকলেও সংখ্যার লড়াইয়ে তাদের প্রতিরোধ ব্যর্থ হয়। সর্বসম্মতিতেই শেষ পর্যন্ত ঘোষণা করা হয় ৩১ অক্টোবর আনুষ্ঠানিক ভাবে জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখ দুটি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসাবে আত্মপ্রকাশ করছে।