Date : 2024-05-26

এই গরমে এসি ও ফ্যান একসঙ্গে চালাচ্ছেন? এরফল কি জানেন?

নাজিয়া রহমান, সাংবাদিক: বৈশাখী দহনে পুড়ছে বাংলা। উত্তরবঙ্গের কয়েলটি জেলা বৃষ্টির সুখ পেলেও, দক্ষিণবঙ্গের ভাগ্যে নেই ছিঁটে ফোঁটা বৃষ্টি। শহর কলকাতার তাপমাত্রা ৪১ছাড়িয়েছে। দুই বর্ধমান, দুই মেদিনীপুর, বাঁকুড়া, বীরভূম ও পুরুলিয়াতে তাপপ্রবাহের লাল সতর্কতা। এই সময় মানুষ স্বস্তি পেতে এসির দিকে ঝুঁকছেন। আাবার কেউ ফ্যানের তলা থেকে সরছেন না। কেউ কেউ আবার একসঙ্গে চালান দুটোই। তবে ফ্যান ও এসি দুটিই চালাচ্ছে তারা কি আদৌও জানেন যে তারা ঠিক করছেন না ভুল করছেন? দুটিই একসঙ্গে চালিয়ে ভুল করছেন না তো? বিশেষজ্ঞদের মতে, এসি এবং ফ্যান এক সঙ্গে চালানো ভুল নয়। বরং এটি অনেকটা সাশ্রয়জনক। অতিরিক্ত গরমে এসি চালানোর পরেও মনে হয় যে, ঘর ঠান্ডা হচ্ছে না।  সাধারণত এসি চালানোর পর ঘরের একটি অংশ বেশি ঠান্ডা হয়ে যায়। অর্থাৎ ঘরের সম্পূর্ণ জায়গা সমান ভাবে ঠান্ডা হয় না। আবার এসি থেকে যত দূরে গেলে ততই ঠান্ডা কম লাগবে পাশাপাশি বাড়বে তাপমাত্রা । সেই কারণে অনেকেই এসি এবং সিলিং ফ্যান একসঙ্গে চালিয়ে রাখে। যদিও বিশেষজ্ঞদের মতে, এসি এবং সিলিং ফ্যান একসঙ্গে চালালে অনেক উপকার পাওয়া যাবে। তাঁদের মতে, এসি এবং ফ্যান একসঙ্গে চালালে এসির ঠান্ডা বাতাস ঘরের কোনায় কোনায় ছড়িয়ে যায়। পাশাপাশি এতে বিদ্যুৎ-এর বিলেও সাশ্রয় হয়। অন্যদিকে সিলিং ফ্যান ঘরের হাওয়া ঠান্ডা করতে পারে না। কিন্তু এই যন্ত্রটি এসির ঠান্ডা বাতাস পুরো ঘরে ছড়িয়ে দিতে সাহায্য করে। ফলে ঘর দ্রুত ঠান্ডা হয়। এতে এসির ওপর চাপ কম পড়ে। এমনকি এসি ও সিলিং ফ্যান একসঙ্গে চালালে ১২ থেকে ২০ শতাংশ পর্যন্ত বিদ্যুৎ সাশ্রয় করা সম্ভব হয় বলে মত বিশেষজ্ঞদের। আর ফ্যান ও এসি একসঙ্গে চালালেঠান্ডা হাওয়া ঘরের চারি দিকে ছড়িয়ে যায়। এতে শরীরের পক্ষেও ভালো। এসি ২৪ ডিগ্রিতে দিয়ে সিলিং ফ্যান চালিয়ে দিন। এতে পুরো ঘরে ২০-২১ ডিগ্রি তাপমাত্রা অনুভব হবে। এতে ঘরও ঠান্ডা থাকবে ইলেকট্রিক বিলও কম।

আরো পড়ুন: দৈনিক রাশিফল , ২৭ এপ্রিল, ২০২৪ শনিবার