Date : 2024-05-26

মাধ্যমিকের মেধাতালিকায় ১থেকে ১০ এর মধ্যে ৫৭ জন

নাজিয়া রহমান, সাংবাদিকঃ ২মে ঘড়ির কাঁটায় সকাল ৯টা। মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সভাপতি রামানুজ গঙ্গোপাধ্যায় সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে প্রকাশ করেন ২০২৪ এর মাধ্যমিকের ফল। সকাল ৯টা ৪৫ মিনিট থেকে অনলাইন বা মোবাইল অ্যাপে রেজাল্ট জানতে পেরেছেন পরীক্ষার্থীরা। বিগত বছরগুলির মতো এবারও মেধা তালিকা প্রকাশ করেছে পর্ষদ। এবছর পরীক্ষায় বসেছে ৯,লক্ষ ১২হাজার ৫৯৮ জন। পাস করেছে ৭লক্ষ ৬৫হাজার ২৫২ জন। মোট পাসের হার ৮৬.৩১ শতাংশ। এবার ১০ জনের মেধাতালিকায় ৫৭ জন স্থান পেয়েছে।মাধ্যমিকে প্রথম স্থানাধিকারী কোচবিহার রামভোলা হাইস্কুলের চন্দ্রচূড় সেন, যার প্রাপ্ত নম্বর ৬৯৩।
মাধ্যমিকের দ্বিতীয় স্থানাধিকারী পুরুলিয়া জিলা স্কুলের সাম্যপ্রিয় গুরু, তার প্রাপ্ত নম্বর ৬৯২।
মাধ্যমিকের মেধাতালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে ৩ জন। তারা হল, দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাট হাইস্কুলের উদয়ন প্রসাদ, বীরভূম নিউ ইন্টিগ্রেডেড হাইস্কুলের পুষ্পিতা বাশুরি ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশনের নৈঋত রঞ্জন পাল। প্রত্যেকের প্রাপ্ত নম্বর ৬৯১।

মাধ্যমিকে চতুর্থ হয়েছে কামারপুকুর রামকৃষ্ণ মিশনের তপজ্যোতি মণ্ডল। তার প্রাপ্ত নম্বর ৬৯০।অর্ঘ্যদীপ বসাকের নাম রয়েছে পঞ্চম স্থানে। পূর্ব বর্ধমানের পারুলডাঙা নসরতপুর হাইস্কুলের এই পড়ুয়ার প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৯।

চার জন পরীক্ষার্থীর নাম রয়েছে ষষ্ঠ স্থানে। তারা হল, দক্ষিণ দিনাজপুরের বালুরঘাট হাইস্কুলের কৃশানু সাহা, মালদার মোজামপুর হাইস্কুলের মহম্মদ শাহাবুদ্দিন আলি, পশ্চিম মেদিনীপুরের মেদিনীপুর কলেজিয়েট স্কুলের কৌস্তভ সাহু ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ বিদ্যালয়ের অলিভ গায়েন। এদের প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৮।
মেধাতালিকার সপ্তম স্থানে আছে ৮ পরীক্ষার্থী। ৩ জন দক্ষিণ দিনাজপুরের। তারা হল, বালুরঘাট গার্লস হাইস্কুলের আবৃত্তি ঘটক এবং অর্পিতা ঘোষ এবং , বালুরঘাট হাইস্কুলের সাত্বত দে। এছাড়া বীরভূমের সরোজিনী দেবী সরস্বতী শিশু মন্দিরের আরত্রিক সৌ, পূর্ব মেদিনীপুরের জ্ঞানদীপ বিদ্যাপীঠ হাইস্কুলের সুপম কুমার রায়, বিবেকানন্দ আশ্রম শিক্ষায়তনের ছাত্র কৌস্তভ মাল ও দক্ষিণ ২৪ পরগনার নরেন্দ্রপুর রামকৃষ্ণ মিশন বিদ্যালয়ের আলেখ্য মাইতি রয়েছে এই স্থানে। কোচবিহার মাথাভাঙ্গা হাইস্কুলের আসিফ কামাল।এদের প্রত্যেকের প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৭।

মেধাতালিকায় অষ্টম স্থানে রয়েছে ৪জন পরীক্ষার্থী। যাদের প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৬।নবম স্থানে আছে ১৬ জন পরীক্ষার্থী। যাদের প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৫। আর দশম স্থানে আছে ১৮জন পরীক্ষার্থীর নাম। যাদের প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৪। এই মেধাতালিকায় দশম স্থানে রয়েছে কলকাতার নাম। কলকাতার সোমদত্তা সামন্ত। কমলা গার্লস হাইস্কুলের ছাত্রী। যার প্রাপ্ত নম্বর ৬৮৪।

আরো পড়ুন: আসছে সূর্যশেখর গঙ্গোপাধ্যায়ের বায়োপিক “দাবাড়ু”।