Date : 2024-02-28

স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য বন্ধ হতে পারে আরও শহরের আরও ২টি সেতু…

কলকাতা: শিয়ালদহ বিদ্যাপতি সেতুর পর এবার স্বাস্থ্য পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে পারল না শহরের আরও ২টি সেতু। সূত্রের খবর, বিজন সেতুর ও অরবিন্দ সেতুর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য আগস্টের প্রথম সপ্তাহে কিছুদিনের জন্য বন্ধ রাখা হতে পারে সেতু। কম করে ৭২ ঘন্টা বন্ধ না রাখলে সেতুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা সম্ভব নয় বলে জানিয়ে দিয়েছে কেএমডিএ।

প্রতিদিনই উত্তর এবং দক্ষিণের এই ব্যস্ত সেতু দিয়ে অসংখ্য যান চলাচল করে। আর ৩ দিন সেতু বন্ধ থাকলে ওই অঞ্চলে ব্যাপক সমস্যা দেখা দিতে পারে যান চলাচলে। পুলিশ সূত্রে খবর, ভোগান্তি এড়াতে বিকল্প ব্যবস্থার কথা আগে থেকেই ভেবে নিতে হবে। কেএমডিএ সূত্রে খবর, শহরের একাধিক সেতুর অবস্থা শোচনীয়।

আরও পড়ুন : উল্টোডাঙা সেতুর একাংশ চালু হলেও এখনও বন্ধ বিমানবন্দরগামী রুট

কোথাও ধরেছে ফাটল আবার কোথাও চাঙড় উঠে বেরিয়ে পড়েছে হাড়-কঙ্কাল। বিশেষত, যানজট মোকাবিলা করতে স্বাধীনতা দিবস, জন্মাষ্টমী ইত্যাদি দিনগুলিকে কাজে লাগাতে পারে কেএমডিএ। বড়সড় দুর্ঘটনার আশঙ্কা এড়াতে পুজোর আগেই সেতুর স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও মেরামতির কাজ শেষ করতে পারে কেএমডিএ।

উত্তর ও দক্ষিণ কলকাতার ট্রাফিক কন্ট্রোল করার জন্য বিকল্প পথ লেখা থাকবে বন্ধ সেতুর পাশে সাইন বোর্ডে। সেই পথেই এই দুদিন গাড়ি চলাচল করবে বলে জানিয়েছে কলকাতা পুলিশ।

আরও পড়ুন: বাসকিউল সেতুতে যান্ত্রিক ত্রুটি, তীব্র যানজট খিদিরপুরে

এমনিতেই পুজোর কেনাকাটা শুরু হতে আর বেশি সময় বাকি নেই, আর কিছুদিন পর থেকেই শহরে বাড়তে শুরু করবে গাড়ির সংখ্যা, মার্কেটিং ভিড়, তাই আগে থেকেই দুর্ঘটনা এড়াতে সেতুগুলিকে সবল করে তোলা জরুরী বলে মনে করছে কেএমডিএ।

লালবাজার সূত্রে খবর, অরবিন্দ সেতু বন্ধ থাকলে খান্না থেকে উল্টোডাঙ্গার যোগাযোগ ব্যবস্থা স্তব্ধ হয়ে যাবে৷ সেক্ষেত্রে সম্ভবত মানিকতলা, বেলেঘাটা ও ক্যানেল রোড দিয়ে বিকল্প রাস্তা তৈরির পরিকল্পনা করা হবে৷ পাশাপাশি, বিজন সেতু বন্ধ থাকলে যানজট তৈরি হবে দক্ষিণ কলকাতায়৷ ফলে কসবা, ইস্টার্ন মেট্রোপলিটন বাইপাস ও রুবির সঙ্গে কালীঘাট, গড়িয়াহাট ও তৎসংলগ্ন এলাকার যোগাযোগ থমকে যাবে। তার বদলে চাপ বাড়বে যাদবপুর থানার সামনে।