Date : 2019-09-18

রাষ্ট্রসংঘের কাশ্মীর নিয়ে বৈঠকে চিন ছাড়া কাউকেই পাশে পেল না পাকিস্তান…

ওয়েব ডেস্ক: চিনের আবেদনে রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে কাশ্মীর নিয়ে বিশেষ বৈঠকের আবেদন করা হয়। পাকিস্তানের আবেদনে সাড়া দিয়েই চিন রাষ্ট্রসংঘে এই বৈঠকের কথা জানায়। যদিও রুদ্ধদ্বার এই বৈঠকে পাকিস্তানের পাশে ছিল চিন। কিন্তু রাষ্ট্রসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের বাকি ৪ সদস্য ভারতের পক্ষেই দাঁডিয়েছে। এদিন রাশিয়া, ফ্রান্স, ব্রিটেন এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র জানায় কাশ্মীর ভারত ও পাকিস্তানের দ্বিপাক্ষিক বিষয় তাই এই বিষয়ে রাষ্ট্রসংঘ হস্তক্ষেপ করতে পারে না।

শুক্রবার সন্ধ্যে সাড়ে ৭টায় শুরু হয়েছিল বৈঠক। প্রায় ৭৩ মিনিট ধরে চলে আলোচনা। ওই বৈঠকে ভারত ও পাকিস্তানের প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন না। বৈঠকটি আনুষ্ঠানিক ছিল না, ফলে রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদের নথিতে ঠাঁই পাবে না।

আরও পড়ুন : ৩৭০ ধারা বাতিল মেনে নেবে না কাশ্মীরের মানুষ,হুঁশিয়ারি পাক বিদেশ মন্ত্রকের

বৈঠকে চিন ছাড়া রাষ্ট্রসঙ্ঘের বাকি চার স্থায়ী সদস্য রাশিয়া, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন ও ফ্রান্স পাশে দাঁড়িয়েছে ভারতের। তারা মনে করে, কাশ্মীর ভারত-পাকিস্তানের অভ্যন্তরীণ বিষয়। কিন্তু রাষ্ট্রসংঘে নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে চিন পাকিস্তানের পক্ষেই সওয়াল করে। চিনের তরফ থেকে জানানো হয়, কাশ্মীর দ্বিপাক্ষিক ইস্যু।

কিন্তু এটা নিয়ে ভারত একক ভাবে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যদিও ভারতের পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে কাশ্মীর ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখের পরিবর্তনে আন্তর্জাতিক সীমান্তের সঙ্গে কোনও অদলবদল করা হয়নি।

আরও পড়ুন : মৃত হামজা বিন লাদেন, মার্কিন রিপোর্টে চাঞ্চল্য

রাষ্ট্রসঙ্ঘের ভারতের প্রতিনিধি সৈয়দ আকবরউদ্দিনও স্পষ্ট করে জানিয়ে দেন, অনুছ্দে ৩৭০ রদ ভারতের অভ্যন্তরীণ ব্যাপার। সেখানকার মানুষের উন্নয়নের জন্যই প্রত্যাহার করা হয়েছে।রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদে আলোচনা চেয়ে ৬ অগাস্ট চিঠি দেন পাক বিদেশমন্ত্রী মহম্মদ কুরেশি। পাকিস্তানের পাশে দাঁড়ায় চিন। বেজিং-এর আবেদনেই রাষ্ট্রসংঘে রুদ্ধদ্বার বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।