Date : 2019-12-16

২ বার ফিরে গেল মৃত্যুদণ্ডের সাজা, রেহাই পেল অভিযুক্ত আনিসুর রহমান….

কলকাতা:- পরপর দুবার হাইকোর্টে ফাঁসির সাজা মুকুব হল বৃদ্ধের। গল্প বললেও কম বলা হবে। একই ধরনের অপরাধে সল্টলেকের বাসিন্দা আনিসুর রহমানকে পরপর দুবার ফাঁসির সাজা মকুব করল আদালত। ২০০২ সালে সাড়ে তিন কেজি হেরোইন বাড়িতে মজুত করার কারনে গ্রেফতার করা হয় আনিসুর রহমানকে৷ সেই সময় মাদক সংক্রান্ত আরো কিছু মামলায় অভিযুক্ত হয় রহমান। সেই মামলায় ২০০৬ সালে সিটি সেশন কোর্ট মাদক সংক্রান্ত মামলায় তাকে ফাঁসির সাজা শোনায়। হাইকোর্টে আপিল করে রহমান। ২০১২ সালে তার সাজা কমিয়ে ১৪ বছর করে দেয় হাইকোর্ট।

মশার পর পোকার কামড়, স্ক্রাব টাইফাসে মৃত মুর্শিদাবাদের যুবক

উল্লেখ্য মাদক আইন ৩১এ অনুযায়ী সেসময় মৃত্যু দন্ড কার্যকরী ছিল। ২০১৪ সালে সেই আইনের সংশোধন করা হয়। যেখানে মৃত্যুদন্ড অথবা শাস্তি প্রযোজ্য হয়। একটি মামলায় রেহাই মিললেও হেরোইন রাখার অভিযোগে বারাসত আদলত ২০১৪ সালে তাকে মৃত্যু দন্ড দেয়। মামলা আসে হাইকোর্টে৷ কিন্তু নতুন আইনকে সামনে রেখে রহমানের মৃত্যু দন্ড মুকুব করে ৩০ বছরের সাজা এবং ৩ লক্ষ টাকা জরিমানা করেন বিচারপতি জয়মাল্য বাগচি ও বিচারপতি শুভ্র ঘোষ ডিভিশন বেঞ্চ।

দূষণ, বিষক্রিয়ায় দম বন্ধ দশা, পার্কের জলাশয়ে ভেসে উঠল কয়েকশো মাছ

আনিসুর রহমানের বর্তমানে ৭৫ বছর বয়স। সাজার মেয়াদ শেষ হবে ৮৮ বছর বয়সে। রহমানের আইনজীবী ইন্দ্রজিৎ দে জানিয়েছেন, হাইকোর্ট রহমানের সাজা মৃত্যু দন্ড বহাল রাখলে মাদক সংক্রান্ত অপরাধে বহু অভিযুক্তদের ফাঁসির ক্ষেত্রে সাজা দেওয়ার প্রশ্ন উঠে যেত।