Date : 2019-12-16

গোলাপি আশ্রমের জমি বিবাদে ৮ সদস্যের জামিন মঞ্জুর হাইকোর্টে….

কলকাতা:- বিশ্ব হিন্দু পরিষদের গোপালি আশ্রমের ৮ সদস্যের আগাম জামিন মঞ্জুর করল কলকাতা হাইকোর্ট। মামলার বয়ান অনুযায়ী ১৯৯০ সালের খড়্গপুরের সালুয়া গ্রামে বিশ্ব হিন্দু পরিষদের গোপালি আশ্রমের জমি নিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের সাথে সমস্যা তৈরি হয়। দীর্ঘ ২৯ বছর ধরেই বিশ্ব হিন্দু পরিষদ পরিচালিত গোপালি আশ্রমের জমি দখল নেওয়ার চেষ্টা করেছে স্থানীয় বাসিন্দারা এমনটাই অভিযোগ গোপালী আশ্রম কর্তৃপক্ষের। এই অভিযোগ জানিয়ে নিম্ন আদালতে মামলা করে বিশ্বহিন্দু পরিষদ। চলতি বছরের ১০ ই অক্টোবর গোপালি আশ্রমের জমি দখল করে সেখানে পাঁচিল তুলে দেওয়া হয়। এই নিয়ে আশ্রমের সদস্যদের সাথে স্থানীয় বাসিন্দাদের বচসা হয়।

ইডেনে ধাঁচেই একলাফে দামে সেঞ্চুরি করল বাজারের এই ‘গোলাপি বল’

ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে খড়গপুর থানায় দুটি অভিযোগ দায়ের করেন আশ্রম কর্তৃপক্ষ। কিন্তু গত ৪ নভেম্বর স্থানীয় একজন মহিলা আশ্রমের সদস্য সত্যের মহাপাত্র, সুভাষ চন্দ্র রায়, বিমল দাস, কিশোরগঞ্জ ভৌমিক ও জনার্দন দের বিরুদ্ধে খুনের চেষ্টা এবং শ্লীলতাহানীর অভিযোগ দায়ের করেন খড়গপুর থানায়। ঘটনায় আগাম জামিনের জন্য অভিযুক্তরা গত ১৯ শে নভেম্বর কলকাতা হাইকোর্টে আবেদন জানান।

বুধবার মামলার শুনানি চলাকালীন আবেদনকারীর পক্ষে আইনজীবী ফিরোজ এডুলজি এবংসুমিতা সরকার আদালতে জানান দীর্ঘ ২৯ বছর ধরে আশ্রমের জমি দখল করার চেষ্টা চালাচ্ছেন স্থানীয় কিছু মানুষজন। সেই জমি রক্ষা করার জন্যই বিশ্ব হিন্দু পরিষদ পরিচালিত এই আশ্রমের কর্মীরা বাধা দেওয়ার চেষ্টা করেন।

হাওড়া ব্রিজে বাসের রেষারেষি, দুর্ঘটনায় আহত ৪

অন্যদিকে ১ লক্ষ টাকার বিনিময় এই জমি স্থানীয় বাসিন্দাদের হাতে তুলে দেওয়ার জন্য আশ্রমিকদের উপর চাপ সৃষ্টি করা হয় বলে অভিযোগ। সরকারপক্ষের আইনজীবী ইকবাল খান জানান এই জমি নিয়ে দীর্ঘদিন বিবাদ রয়েছে। যদিও আক্রান্ত অভিযোগকারী সঠিক তথ্য পুলিশের কাছে জমা দেয়নি বলে সূত্রের খবর।
উভয় পক্ষের বক্তব্য শোনার পর বিচারপতি জয়মাল্য বাগচি ও বিচারপতি শুভ্রা কুন্ডু ৮ জনের আগাম জামিন মঞ্জুর করেন।