Date : 2020-01-24

১২ লক্ষ টাকা ঘুষ নিয়ে জঙ্গিদের গাইড হয় দাবিন্দার

ওয়েব ডেস্ক : মাত্র ১২ লক্ষ টাকার বিনিময়ে সন্ত্রাসবাদীদের চণ্ডিগড় পৌঁছে দিতে রাজি হয়েছিল জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের ডিএসপি দাবিন্দার সিং। জেরায় এ কথা সে পুলিশ ও গোয়েন্দাদের কাছে কবুল করেছে।ইন্টেলিজেন্স ব্যুরো, র, মিলিটারি ইন্টেলিজেন্স এবং পুলিশের যৌথ জেরায় জানা গিয়েছে, হিজবুল মুজাহিদিনের তিন সন্ত্রাসবাদীকে চণ্ডিগড় পর্যন্ত পৌঁছে দেবে বলে কথা দিয়েছিল জম্মু-কাশ্মীরের পুলিশ অফিসার, রাষ্ট্রপতি পদকপ্রাপ্ত দাবিন্দার সিং। বিনিময়ে ১২ লক্ষ টাকা ঘুষ নিয়েছিল। চণ্ডিগড় থেকে ওই তিন হিজবুল মুজাহিদিন জঙ্গি দিল্লি যেত। ২৬ জানুয়ারি সাধারণতন্ত্র দিবসে সেখানে তারা হামলা চালাত। শ্রীনগরে ইন্ডিয়ান আর্মির ফিফটিন কোরের সদর দফতর বাদামিবাগে। একাধিক যুদ্ধে পোড়খাওয়া ইন্ডিয়ান আর্মির এই গ্যারিসন। ১৯৪৮ সাল থেকে শ্রীনগরে ঘাঁটি পেতে তারা সক্রিয় রয়েছে। গোটা কাশ্মীর উপত্যকার নিরাপত্তার দায়িত্ব তারা বহন করে। এই কোরের বর্তমান কমান্ডার লেফটেন্যান্ট জেনারেল কনোয়ালজিৎ সিং ধিলোঁ। বাদামিবাগেই তাঁর দফতর। এই বাদামিবাগের পাশেই হাই সিকিউরিটি জোনের অন্তর্ভুক্ত ইন্দিরানগরে নিজের বাড়িতে সন্ত্রাসবাদীদের তুলেছিল দাবিন্দার। সূত্র মারফত জানা গিয়েছে, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক এই কেস এনআইএ-র হাতে সঁপে দিতে পারে। রাষ্ট্রপতি মেডেলপ্রাপ্ত দাবিন্দারের সব সম্মান কেড়ে নেওয়া হতে পারে।

আরও পড়ুন :ভূমধ্যসাগরের নীচে মিলল স্বর্ণ-সম্পদপূর্ণ শতাব্দী প্রাচীন শহর

কাশ্মীর রেঞ্জের ইন্সপেক্টর জেনারেল বিজয় কুমার সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, জেরায় দাবিন্দার কবুল করেছে, প্রথমে সন্ত্রাসবাদীদের জম্মুতে নিয়ে যাওয়ার কথা ছিল। সেখান থেকে চণ্ডিগড়। চণ্ডিগড় থেকে দিল্লি। কিন্তু আশার কথা, শ্রীনগরের ইন্দিরানগর থেকে যে সাদা মারুতি গাড়ি চালিয়ে তারা রওনা হয়েছিল সেটা কুলগামের মির বাজারের কাছে পুলিশের নজরে পড়ে যায়। তখন গাড়ি চালাচ্ছিল হিজবুল জঙ্গি ইরফান মির। দাবিন্দার সহ চারজন ধরা পড়ে। গাড়িতে স্বয়ংক্রিয় আগ্নেয়াস্ত্র ও হ্যান্ড গ্রেনেডও ছিল।

আরও পড়ুন : মমতা ছাড়াই বিরোধী বৈঠক সারলেন সোনিয়া

জানা গিয়েছে, দাবিন্দার সিংয়ের আর কোনও সন্ত্রাসবাদী যোগ আছে কি না এবং অতীতেও সে একই ভাবে সন্ত্রাসবাদীদের সাহায্য করেছে কি না, তদন্ত করে সেটাই দেখবে ন্যাশনাল ইন্টেলিজেন্স এজেন্সি।