Date : 2020-09-25

টোটো চালিয়ে অক্ষর জ্ঞান উপহার, বেড়ে উঠছে বিষ্ণুপদর ‘আশালতা’

উত্তর ২৪ পরগনা: স্বপ্ন অনেক, সামর্থ যদিও বা সামান্য। সেই স্বপ্ন পূরণ করতে ছুটে চলেছে তার টোটো। আর্থিক কষ্টের মধ্যেও স্নাতক উত্তীর্ণ হয়েছিলেন হাসনাবাদের টোটো চালক বিষ্ণুপদ মণ্ডল। অভাবের সঙ্গে লড়াই করার কষ্ট বুঝেছিলেন তিনি। সেখান থেকেই আকাশ ছোঁয়ার ইচ্ছে তৈরি হয়েছিল তাঁর মধ্যে। বহু কষ্ট করে তৈরি করেছেন একটি নার্সারী স্কুল। এখন অনেকটাই বড় হয়েছে তাঁর স্বপ্নের ‘আশালতা’। ছোট্ট ঘর থেকে পড়ুয়াদের দুলে দুলে পড়ার আওয়াজ শুনে শান্তি পান বিষ্ণুপদ মণ্ডল।

হিন্দু মতে সাত পাঁকে বাধা পড়লেন দম্পতি, বিয়ে হল মসজিদে!

নিজে যে সুযোগ পেতে লড়াই করেছেন সেই সুযোগ যাতে আগামী প্রজন্মের কাছে সহজেই উঠে আসে সেই ব্রত নিয়েছেন বিষ্ণুপদ মণ্ডল। সেই লক্ষ্য পূরণে কঠিন পরিশ্রম করে চলেছেন বিষ্ণুপদ বাবু। এলাকায় কোন স্কুল নেই। পড়াশুনো করতে অনেক দূর যেতে হয় তাদের। আবার অনেক পরিবারই আছে আর্থিক কষ্টের কারণে সন্তানকে পড়ানোর সুযোগ হয় না।

‘জীবন্ত কংক্রিট’ করতে পারে সালোকসংশ্লেষ! অভিনব আবিষ্কার বিজ্ঞানীর

আজ তাদের কাছে ভগবানের মতো বিষ্ণুপদ বাবু। মাত্র হাজার টাকা বেতনে দুই শিক্ষিকা রেখেছেন স্কুলে। সব খরচই চালান বিষ্ণুপদ বাবু নিজেই। একদিন অনেক বড় হবে তাঁর স্কুলের ছাত্র-ছাত্রীরা আশালতাকে নিয়ে এমনই আশা রেখে চলেছেন বিষ্ণুপদ মণ্ডল। সামাজিক অবক্ষয়ের সময় এমন উদ্যোগ প্রশংসনীয়।