Date : 2019-09-19

আগামীকাল থেকে গরম ভাতের আশায় আজও মুড়ি চিবিয়ে বাড়ি ফিরল পড়ুয়ারা….

হুগলি: যান্ত্রিক কারণে গ্যাস ওভেনে রান্না করা যায়নি। মঙ্গলবার মিড-ডে মিলে তাই পড়ুয়াদের দেওয়া হল মুড়ি-চানাচুর। ঘটনাট ঘটেছে বালির জোড়া অশ্বত্থতলা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। সাম্প্রতিকালে মিড-ডে-মিল নিয়ে বিতর্কে জড়িয়েছে রাজ্যের একাধিক স্কুল। সেই তালিকায় নতুন করে নাম জুড়ল হাওড়ার অশ্বত্থতলা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নাম। মঙ্গলবার রান্না চলাকালীন হঠাৎ-ই সিলিন্ডার থেকে গ্যাস লিক করার গন্ধ বেরতে থাকে। রাঁধুনিরা বিপদ বুঝে রান্না বন্ধ করে দেয়।

আরও পড়ুন : স্টিকারে “পদ্মের আগমনী”, দুর্গাপুজোয় এবার অভিনব প্রচারে বিজেপির

রান্না হয়নি, ফলে পড়ুয়াদের মিড-ডে-মিলে দুপুরের খাওয়ার হিসাবে মুড়ি আর চানাচুর পরিবেশন করা হয়। আধপেটা খেয়ে এভাবেই খিদে মেটায় হুগলির অশ্বথতলা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা। তবে ২৪ ঘন্টা কেটে গেলেও স্বাভাবিক হয়নি পরিস্থিতি। বুধবার দুপুরেও মিড-ডে-মিলের থালায় পরিবেশন করা হয় মুড়ি আর চানাচুর। ঘটনার কথা সামনে আসতেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন অভিভাবকরা।

আরও পড়ুন মিড-ডে মিলের মেনুকার্ডে এবার ডিম, মাছ, মাংস, ৭দিনে মেনু বানালো রাজ্য

স্কুল কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে তাদের জানানো হয়, গ্যাস সিলিন্ডার সারানো হয়নি তাই মিড-ডে মিলে ভাত, তরকারি রান্না করে পরিবেশন করা সম্ভব নয়। ঘটনার কথা জানতে পেরে আসপাশ থেকে কিছু যুবক এসে তাদের কেক ও বিস্কুট দেয় খাওয়ার জন্য। কেন দু-দিন ধরে বাচ্চাদের খাওয়ারের ব্যবস্থা করা হল না এই নিয়ে উঠছে প্রশ্ন।

আরও পড়ুন : মিড-ডে-মিলে ড্যামেজ কন্ট্রোলে হুড়োহুড়ি, রাতারাতি নুন-ভাত বদলে ডিম-ভাত

ঘটনা প্রসঙ্গে প্রথমে মুখ খুলতে না চাইলেও পরে স্কুলের প্রধান শিক্ষক জানান, “গ্যাস সিলিন্ডার সারাতে দেওয়া হয়েছে। এখনও পর্যন্ত তা ফেরৎ দেয়নি। আশা করছি আগামীকাল থেকে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে।” অগত্যা মুড়ি চিবিয়েই কাল ভাতের আশায় বাড়ি ফেরে অশ্বত্থতলা প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা।