Date : 2020-10-27

সন্ত্রাসবাদীদের সঙ্গেই রাষ্ট্রপতি পদকপ্রাপ্তের জেরা চলছে

ওয়েব ডেস্ক : রাষ্ট্রপতি মেডেলপ্রাপ্ত ডেপুটি পুলিশ সুপারিনটেন্ডেন্ট দাবিন্দার সিংকে সন্ত্রাসবাদীদের মতোই জেরা করছে জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ। কাশ্মীর রেঞ্জের ইনস্পেক্টর জেনারেল অফ পুলিশ (আইজিপি) বিজয় কুমার এক সাংবাদিক সম্মেলনে বলেছেন, ডিএসপি যা করেছেন তা অত্যন্ত সাংঘাতিক ও ঘৃণ্য কাজ। ফলে তাঁকে জেরা করার সময় সন্ত্রাসবাদী হিসাবে গণ্য করেই জবানবন্দি রেকর্ড করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন : বিক্রমাদিত্যে নামল তেজস

গত শনিবার কুলগামের মির মার্কেটের কাছে তিন হিজবুল মুজাহিদিন সন্ত্রাসবাদীর সঙ্গে ডিএসপি দাবিন্দার সিং ধরা পড়েন। ওই তিন হিজবুল জঙ্গির সঙ্গে দাবিন্দার একটি সাদা মারুতি গাড়ি চেপে যাচ্ছিলেন। তিন জঙ্গির নাম সৈয়দ নাভিদ মুস্তাক ওরফে নাভিদ বাবু, আসিফ রাদার ওরফে রফি রাদার এবং ইরফান শফি মির। প্রথমোক্ত দুই জঙ্গি গা-ঢাকা দিয়ে থাকলেও মির প্রকাশ্যে কাজ করত। শনিবার মির-ই গাড়িটা চালাচ্ছিল। মির মার্কেটের কাছাকাছি পৌঁছাতেই পুলিশের সন্দেহ হয়। তারা গাড়ি আটকায়। দাবিন্দার ও তিন সন্ত্রাসবাদী ধরা পড়ে যায়। গাড়ি থেকে দুটি একে-ফর্টিসেভেন রাইফেল ও কয়েকটা হ্যান্ড গ্রেনেড মেলে। তিন হিজবুল সন্ত্রাসবাদীই সোফিয়ানের বাসিন্দা।

আরও পড়ুন : গঙ্গাসাগরে পুণ্যার্থীদের সুরক্ষায় বিশেষ ডুবুরি বাহিনী

আরও পড়ুন: ইউক্রেনের বিমান ধ্বংস করেছে ইরান, চাঞ্চল্যকর ভিডিও প্রকাশের পর স্বীকার ইরানের

পরে পুলিশ শ্রীনগরে ডিএসপি সিংয়ের বাড়িতে তল্লাশি চালায়। বাদামিবাগে সেনা সদর দফতরের কাছেই ইন্দিরানগর। হাই সিকিউরিটি জোন। সেখানেই দাবিন্দারের বাড়ি। তাঁর বাড়ি থেকে একটি একে-ফর্টিসেভেন, দুটি পিস্তল ও তিনটি হ্যান্ড গ্রেনেড পাওয়া যায়। আইজিপি বিজয় কুমার জানিয়েছেন, কাজিগুন্ড থানায় তিন সন্ত্রাসবাদীর সঙ্গে দাবিন্দারের নামেও এফআইআর করা হয়েছে। অস্ত্র আইন, বেআইনি কার্যকলাপ (দমন) আইন সহ একাধিক দফায় তাদের নামে মামলা রুজু হয়েছে। গোয়েন্দা সূত্রে জানা গিয়েছে, কুলগামের আমিনু গ্রামে স্পেশাল অপারেশন গ্রুপের (এসওজি) ক্যাম্পে চারজনকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে এবং সেখানে জেরা চলছে।

এর আগেও রাষ্ট্রপতি মেডেলপ্রাপ্ত ডিএসপি দাবিন্দার সিংয়ের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছিল। ২০০১ সালে লস্কর-ই-তোইবার সংসদ আক্রমণে দোষী সাব্যস্ত আফজল গুরু-র পরিবার জানিয়েছে, ২০০৪ সালে তার আইনজীবী সুশীল কুমারকে লেখা চিঠিতে আফজল গুরু ডিএসপি দাবিন্দার সিংকে সংসদ আক্রমণের অন্যতম প্লটার বলে চিহ্নিত করে। সেই সময় বাদগামে হুমহামা-র এসওজি ক্যাম্পে ডিএসপি হিসাবে দায়িত্বে ছিলেন রাষ্ট্রপতি পদকপ্রাপ্ত দাবিন্দার সিং। যদিও এই রিপোর্ট প্রসঙ্গে আইজিপি বিজয় কুমার জানিয়েছেন, পুলিশের কাছে এ ব্যাপারে “কোনও রেকর্ড নেই”।

তিন সন্ত্রাসবাদীর সঙ্গে ধরা পড়ার সময় ডিএসপি দাবিন্দার জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের অ্যান্টি-হাইজ্যাকিং স্কোয়াডে ছিলেন। শ্রীনগর ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্টে তাঁর পোস্টিং ছিল। সাগরপারের খালিস্তানিদের সঙ্গেও দাবিন্দারের যোজসাজশ আছে কি না, সে কথাও জেরা করে জানতে চাইছে জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ।