Date : 2019-03-22

Breaking
২০১৮ এর তুলনায় ২০১৯ এ আরও অসুখী ভারত। রাষ্ট্রপুঞ্জের সুখী সূচকে সাত ধাপ নামল ভারত। সুখী সূচকে ভারতের আগে রয়েছে পাকিস্তান, বাংলাদেশ, চিন।
ফের উত্তপ্ত উপত্যকা। জম্মু- কাশ্মীরের সোপোরে ,সেনা জঙ্গি গুলির লড়াই। নিকেশ ২ জঙ্গি। আরও জঙ্গির লুকিয়ে থাকার আশঙ্কা। এলাকা ঘিরে তল্লাশি সিআরপিএফ – জম্মু কাশ্মীর পুলিশের।
প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার পর হতাশা রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতি রাজকমল পাঠক। রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিলেন তিনি।
কেউ পচা আলুর ঝোল খেতে চাইলে খাক। উন্নয়নের নিরিখে ভোট হবে। সেই ভোটে তৃণমূল কংগ্রেস জয়ী হবে। কোচবিহারের বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামানিককে কটাক্ষ উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের।
তৃণমূলের বহিস্কৃত নেতা নিশীথ প্রামানিক কোচবিহারের বিজেপি প্রার্থী। প্রতিবাদে দলীয় অফিস ভাঙচুর। পদত্যাগের হুঁশিয়ারী জেলার বহু বিজেপি নেতার। জেলা সভাপতির গাড়ি ঘিরে বিক্ষোভ।
বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষকে শুভেচ্ছা। ঘাটালের উন্নয়নে সাহায্য করেছিলেন তিনি। রাজনৈতিক লড়াই হলেও সৌজন্য থাকবে। ট্যুইটারে ভারতী ঘোষকে শুভেচ্ছা জানালেন তৃণমূল প্রার্থী দেব।
পশ্চিমবঙ্গের ২৮ আসনে বিজেপির প্রার্থী তালিকা প্রকাশ। প্রার্থী তালিকায় চমক। ঘাটালে ভারতী ঘোষ। ব্যারাকপুরে প্রার্থী অর্জুন সিং। হুগলি কেন্দ্রে লকেট চট্টোপাধ্যায়।
দলে আরও ব্রাত্য হলেন আডবানী। এবার গান্ধীনগর কেন্দ্রে বর্ষীয়ান নেতা আডবানীকে টিকিট দিল না বিজেপি। আডবানীর গান্ধীনগর কেন্দ্রে ভোটে লড়বেন অমিত শাহ।
লোকসভা ভোটের প্রথম প্রার্থী তালিকা প্রকাশ বিজেপির। বারানসি থেকেই ভোটে লড়বেন মোদী। রাহুলের বিরুদ্ধে আমেঠিতে প্রার্থী স্মৃতি ইরানি।

এখনও বেতন হয়নি BSNL-এর ১.৭৬ লক্ষ কর্মীর

ওয়েব ডেস্ক: আরও শোচনীয় অবস্থা রাষ্ট্রায়ত্ত টেলিকম সংস্থা বিএসএনএল-এর। ১৮ বছরে এই প্রথম বিএসএনল-এর স্থায়ী কর্মীরা ফেব্রুয়ারি মাসের বেতন পেলেন না৷ ফেব্রুয়ারি মাসের মাইনে যারা পেয়েছেন,তারাও মাইনে হাতে পেয়েছেন ২৮ ফেব্রুয়ারি৷ এদিকে অস্থায়ী বা ঠিকাকর্মীদের অবস্থা চূড়ান্ত শোচনীয়৷ বেশকিছু সার্কেলে অস্থায়ী কর্মীদের ৩ মাস কিছু ক্ষেত্রে ৬ মাস পর্যন্ত কোনও বেতন হয়নি৷ সবমিলিয়ে দেশজুড়ে বিএসএনএল-এর ১.৭৬ লক্ষ কর্মী এখনও বেতন পাননি। বিগত পাঁচ বছর ধরে পরিস্থিতি ক্রমশ খারাপ হয়েছে বিএসএনএল-এর।

ভারতের আকাশে নিষিদ্ধ হল বোয়িং ৭৩৭ ম্যাক্স ৮ বিমান

কিন্তু মাসের শুরুতে কর্মীদের বেতন দিতে পারেনি এই ঘটনা এই প্রথম। সংস্থা সূত্রে খবর, আয়ের প্রায় ৫৫ শতাংশ কর্মীদের বেতন দিতেই খরচ হয়ে যায় বিএসএনএল-এর। পাশাপাশি বাজারে অন্যান্য সংস্থার রমরমা হওয়ায় আয় কমেছে বিএসএনএল-এর। এদিকে প্রতিবছর ৮ শতাংশ হারে খরচ বাড়ছে বিএসএনএল-এর। ইতিমধ্যেই বিএসএনএল-এর পুনরুজ্জীবনের দাবিতে টেলিকম মন্ত্রী মনোজ সিনহার সঙ্গে দেখা করেছেন সংস্থার কর্মীরা। সুত্রের খবর, কেরল, জম্মু ও কাশ্মীর ও ওড়িশায় ফেব্রুয়ারির বেতন দেওয়া শুরু হয়েছে। সংস্থার এক আধিকারিক জানিয়েছেন, বাকিদেরও ধীরে ধীরে বেতন দেওয়া হবে।

https://www.youtube.com/user/2008Rplusnews