Date : 2021-10-29

শহরে সৌন্দার্যায়ন নিয়ে রাজ্য-মেট্রো সংঘাত

কলকাতা: ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো প্রকল্পের জন্য রাজ্য সরকার জমি দিয়েছিল মেট্রো কর্তৃপক্ষকে। সেই জমির ডেভেলপমেন্ট চার্জ হিসাবে ২৫২ কোটি টাকা প্রাপ্য ছিল রাজ্য সরকারের। মন্ত্রীসভার অনুমোদন সাপেক্ষে পুরো টাকাটাই মকুব করে দেয় রাজ্য সরকার। বর্তমানে মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষ ব্রিজের নিচের পিলারে বানিজ্যিক ভাবে ব্যবহার করছে বিজ্ঞাপন দিয়ে। বিষয়টি রাজ্য সরকারের নজরে আসতেই মেট্রো রেলের কতৃপক্ষকে চিঠি দেওয়া হয়। কড়া ভাষায় চিঠিটি দেওয়া হয়েছে পৌর নগর উন্নয়ন দফতরের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম তরফ থেকে। চিঠিতে জানানো হয়েছে যে জমি বিনামূল্যে রাজ্যসরকারের থেকে নেওয়া হয়েছে সেটি বানিজ্যিক কাজে ব্যবহার করা যাবে না।

মেট্রো রেল কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে অবশ্য এখনো পর্যন্ত কোন সদুত্তোর এসে পৌঁছায়নি। আগামী সাত দিনের মধ্যে মেট্রো কর্তৃপক্ষ কোন জবাব না দিলে রাজ্য সরকার এবং কে.এম.ডি.এ-র যৌথ উদ্যোগে সমস্ত বিজ্ঞাপন সরিয়ে দেওয়ার হবে বলে সূত্রের খবর। পিলারের নিচে ভার্টিকালি সবুজয়ানের ব্যবস্থা করবে কে.এম.ডি.এ কর্তৃপক্ষ। পরিবেশ দূষণের হাত থেকে শহরকে রক্ষা করতে ইতিমধ্যে আরবান ফরেস্ট তৈরি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কলকাতা পুরসভা। পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী নিজেই কলকাতা পুরসভার মেয়র, তাই এই উদ্যোগ গড়ে তুলতে কার্যকারী ভূমিকা গ্রহণ করেছে কলকাতা পুরসভা। কলকাতা পুরসভার তরফে শহরে সৌন্দর্যায়ন ও সবুজায়নের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে ইতিমধ্যে। তারই অংশ হিসেবে এবার মেট্রোরেল বা ফ্লাইওভারের নিচে যে সকল বাধা রয়েছে তার গায়ে ভার্টিক্যালি গ্রিনারি করার সিদ্ধান্ত নিল কলকাতা পুরসভা এবং পূর্ত দপ্তর।