Date : 2021-10-22

Mamata Banerjee & Babul Supriyo : ফিরে এলো ২৩ জানুয়ারি। কি কথা হয়েছিলো বাবুল-মুখ্যমন্ত্রী !

সঞ্জু সুর, রিপোর্টার : ২৩ জানুয়ারি কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্যোগে নেতাজি জন্মজয়ন্তী পালনের অনুষ্ঠান হয়েছিলো কলকাতার ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল প্রাঙ্গনে। এসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আমন্ত্রিত ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি নিয়ে কম জলঘোলা হয় নি। কিন্তু সেখানে আরো একটি ঘটনা ঘটেছিলো সম্ভবত সবার চোখের আড়ালে। যা প্রকাশ্যে এলো এতদিন পর।

ভিক্টোরিয়ার মঞ্চে তখন চলছিলো সঙ্গীতানুষ্ঠান। মঞ্চের সামনে প্রধানমন্ত্রীর পাশেই আর একটি চেয়ারে বসেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। খুব কাছেই আর একটি চেয়ারে বসেছিলেন তৎকালীন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। সকলেরই মনোযোগ তখন অনুষ্ঠানের দিকে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মনোযোগ তখন অবশ্য আরো একটি বিষয়ের দিকে ছিলো। মঞ্চে যারা সঙ্গীত পরিবেশন করছিলেন তাদের মধ্যে একজনের হাতের লাল রঙের একটা বাদ্যযন্ত্রের দিকেই তখন তাকিয়েছিলেন তিনি। বুঝবার চেষ্টা করছিলেন ঠিক কোন যন্ত্র বাজাচ্ছেন শিল্পী। ঠিকমতো ঠাহর করে উঠতে না পেরে শেষমেশ বাবুল সুপ্রিয়র কাছেই জানতে চাইলেন যন্ত্রটির নাম কি। বাবুল সুপ্রিয় জানালেন যন্ত্রটির নাম “পিয়ানিকা।” মুখ দিয়ে ফুঁ দিয়ে হাত দিয়ে হারমোনিয়ামের মতো বাজাতে হয়। নামটা ও যন্ত্রটা যে বেশ পছন্দ হয়েছে সেটা তৎক্ষণাৎ বাবুল সুপ্রিয় কে জানিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তারপর গঙ্গা দিয়ে অনেক জল গড়িয়েছে। দাদার দল ছেড়ে বাবুল সুপ্রিয় এখন দিদির দলে। বুধবার নজরুল মঞ্চে জাগো বাংলার উৎসব সংখ্যার প্রকাশ অনুষ্ঠানে প্রথম বার প্রকাশ্যে একই মঞ্চে তখন নেত্রী, অভিষেক, বাবুল সবাই। সেখানেই মুখ্যমন্ত্রীর হাতে একটা উপহার তুলে দিলেন বাবুল। দেখা গেল একটি নীল রঙের বাদ্যযন্ত্র। বাবুল সুপ্রিয়‌ই যার নাম বললেন “পিয়ানিকা।” মুখ্যমন্ত্রী তখন জানালেন এই যন্ত্রটার বিষয়ে সেই ভিক্টোরিয়ার অনুষ্ঠানে বাবুলের কাছ থেকে জানতে চেয়েছিলেন। বাদ্যযন্ত্র পেয়ে বাজানোও শুরু করে দিলেন মুখ্যমন্ত্রী। ওদিকে তখন যন্ত্রে ফুঁ দিচ্ছেন বাবুল। তবে কিছুটা বাজানোর পর মুখ্যমন্ত্রী বাদ্যযন্ত্রটি বাবুল সুপ্রিয়র হাতেই ফেরৎ দিলেন। বললেন, “এটা ঠিক হারমোনিয়ামের মতো নয়। এর রিড কম। এটা প্র্যাকটিশ করতে হবে।” পরে বাবুল সুপ্রিয়র সাথে একসাথে ‘পিয়ানিকা’ বাজাবেন এটাও জানিয়ে দিলেন তিনি।