Date : 2023-02-02

আগুন নেভানোর কাজে এবার ড্রোনের ব্যবহার। জানালেন দমকল মন্ত্রী

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক ঃ কোথাও আগুন লাগলে তার উৎসস্থল খুঁজে পাওয়াই অনেক সময় দূরহ হয়ে পরে দমকল কর্মিদের। বিশেষ করে শহরাঞ্চলের ঘিঞ্জি এলাকায়। সেই সমস্যা মেটাতে এবার ড্রোন কেনার সিদ্ধান্ত রাজ্য অগ্নি নির্বাপন দফতরের।

কোথাও আগুন লাগলে দমকল কর্মিরা প্রথমেই যেটা দেখেন তা হলো আগুন ঠিক কোথায় লেগেছে, অর্থাৎ আগুনের উৎসস্থল কোথায়। আগুনের উৎসস্থল খুঁজে বের করতে পারলে আগুন নেভানোর কাজ অনেক সহজ হয়ে যায়। কলকাতা সহ শহরগুলোতে ঘিঞ্জি এলাকায় এই উৎসস্থল খুঁজে বের করতেই অনেকটা সময় কেটে যায়। এক্ষেত্রে ড্রোনের ব্যবহার করলে আকাশপথে উৎসস্থল খুঁজে বের করা অনেকটাই সহজ হবে। সেই কারণে চারটে ড্রোন কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে অগ্নি নির্বাপন দফতর।

দফতরের মন্ত্রী সুজিত বসু জানান, “আমরা চারটে ড্রোন কিনবো। তবে আপাতত দুটো ড্রোন আনা হচ্ছে। আগামি এক থেকে দেড় মাসের মধ্যেই ড্রোন আমাদের হাতে চলে আসবে।” মন্ত্রী আরও জানান, “অর্থ দফতরের ছাড়পত্র পাওয়ায় দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে।” প্রসঙ্গত ইতিমধ্যেই দমকল দফতরের হাতে চারটে রোবোট রয়েছে, যা আগুন নেভানোর কাজে দফতরকে প্রভূত সাহায্য করছে।

এদিকে শুধু অত্যাধুনিক সরঞ্জাম কেনাই নয়, আগামি দিনে রাজ্যে আরো চারটি নতুন ফায়ার স্টেশন হচ্ছে বলেও জানান মন্ত্রী সুজিত বসু। মন্ত্রীর কথায়, “লেকটাউন ও দুবরাজপুরে নতুন ফায়ার স্টেশন তৈরির কাজ শুরু হয়ে গেছে। পাশাপাশি দেগঙ্গা ও জঙ্গীপুরে নতুন দুটি ফায়ার স্টেশন তৈরির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।” এছাড়া কালীঘাট ও টালিগঞ্জ ফায়ার স্টেশন দুটিকে আধুনিকভাবে সাজিয়ে তোলার কাজ‌ও হাতে নিয়েছে বলে জানান মন্ত্রী। কালিঘাট ফায়ার স্টেশন অনেক পুরানো। সেটাকে কালিঘাট মন্দিরের আদলে পুনরায় তৈরি করা হবে বলে জানালেন মন্ত্রী।