Date : 2019-03-22

Breaking
২০১৮ এর তুলনায় ২০১৯ এ আরও অসুখী ভারত। রাষ্ট্রপুঞ্জের সুখী সূচকে সাত ধাপ নামল ভারত। সুখী সূচকে ভারতের আগে রয়েছে পাকিস্তান, বাংলাদেশ, চিন।
ফের উত্তপ্ত উপত্যকা। জম্মু- কাশ্মীরের সোপোরে ,সেনা জঙ্গি গুলির লড়াই। নিকেশ ২ জঙ্গি। আরও জঙ্গির লুকিয়ে থাকার আশঙ্কা। এলাকা ঘিরে তল্লাশি সিআরপিএফ – জম্মু কাশ্মীর পুলিশের।
প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার পর হতাশা রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতি রাজকমল পাঠক। রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিলেন তিনি।
কেউ পচা আলুর ঝোল খেতে চাইলে খাক। উন্নয়নের নিরিখে ভোট হবে। সেই ভোটে তৃণমূল কংগ্রেস জয়ী হবে। কোচবিহারের বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামানিককে কটাক্ষ উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের।
তৃণমূলের বহিস্কৃত নেতা নিশীথ প্রামানিক কোচবিহারের বিজেপি প্রার্থী। প্রতিবাদে দলীয় অফিস ভাঙচুর। পদত্যাগের হুঁশিয়ারী জেলার বহু বিজেপি নেতার। জেলা সভাপতির গাড়ি ঘিরে বিক্ষোভ।
বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষকে শুভেচ্ছা। ঘাটালের উন্নয়নে সাহায্য করেছিলেন তিনি। রাজনৈতিক লড়াই হলেও সৌজন্য থাকবে। ট্যুইটারে ভারতী ঘোষকে শুভেচ্ছা জানালেন তৃণমূল প্রার্থী দেব।
পশ্চিমবঙ্গের ২৮ আসনে বিজেপির প্রার্থী তালিকা প্রকাশ। প্রার্থী তালিকায় চমক। ঘাটালে ভারতী ঘোষ। ব্যারাকপুরে প্রার্থী অর্জুন সিং। হুগলি কেন্দ্রে লকেট চট্টোপাধ্যায়।
দলে আরও ব্রাত্য হলেন আডবানী। এবার গান্ধীনগর কেন্দ্রে বর্ষীয়ান নেতা আডবানীকে টিকিট দিল না বিজেপি। আডবানীর গান্ধীনগর কেন্দ্রে ভোটে লড়বেন অমিত শাহ।
লোকসভা ভোটের প্রথম প্রার্থী তালিকা প্রকাশ বিজেপির। বারানসি থেকেই ভোটে লড়বেন মোদী। রাহুলের বিরুদ্ধে আমেঠিতে প্রার্থী স্মৃতি ইরানি।

মহাশিবরাত্রি ব্রতের ফল পেতে কি করবেন

ওয়েব ডেস্ক: মাঝে আর একটা দিন। ফাল্গুন মাসের চতুর্দশী তিথিতে গভীর কালো রাত্রিতে দেশ জুড়ে পালিত হবে মহা শিবরাত্রি ব্রত। নির্ঘন্ট মেনে এইবছর শিবরাত্রি পড়েছে সোমবার। বাবার পূজো তা আবার বাবার বারেই। ভক্তকুলের মধ্যে তাই এবছরের শিবরাত্রি পালন বিশেষ উৎসাহ রাখবে। শাস্ত্র মতে সোমবার শিবরাত্রি অত্যন্ত শুভ মনে করা হয়।

তাই নিয়মের সঙ্গে শিবরাত্রি পালন করতে হলে শনিবার থেকেই শুরু করে দিন সংযম, মহাব্রতের পূর্ণ ফল লাভ হবেই। নিয়ম অনুসারে শিবরাত্রির আগের দিন অর্থাৎ ত্রয়োদশী তিথি চলাকালীন ফলাহার গ্রহন করতে হয়। এমনকি তৃণভূমিতে শয্যায় রাত্রি যাপন করতে হয়। পরদিন পূর্ণ দিবস উপবাস থেকে চার প্রহরে এক একটি দ্রব্য দিয়ে অভিষেক করা হয় শিবের। পরদিন ব্রাহ্মণ ভোজন করিয়ে হবিষ্যান্ন গ্রহণ করলে শেষ হয় মহাশিবরাত্রির ব্রতোপবাস।

পঞ্জিকা অনুযায়ী এবারের মহাশিবরাত্রি সন্ধ্যা ৬.৪৩.৪৮ থেকে শুরু হয়ে শেষ হবে রাত্রি ৩.২৯.১৫। তাই এই প্রবল সংযমের ব্রত পালন করতে গেলে শনিবার থেকেই ফলের উপর থাকুন। আপনি ডায়বেটিসে আক্রান্ত হলে মিষ্টি খেতে পারবেন না। সেক্ষেত্রে সুজি, ছাতু খেতে পারেন। সারদিন চারপ্রহরে জল দিয়ে মহাশিবরাত্রি পালন করুন সংযমের সঙ্গে।