Date : 2019-03-22

Breaking
২০১৮ এর তুলনায় ২০১৯ এ আরও অসুখী ভারত। রাষ্ট্রপুঞ্জের সুখী সূচকে সাত ধাপ নামল ভারত। সুখী সূচকে ভারতের আগে রয়েছে পাকিস্তান, বাংলাদেশ, চিন।
ফের উত্তপ্ত উপত্যকা। জম্মু- কাশ্মীরের সোপোরে ,সেনা জঙ্গি গুলির লড়াই। নিকেশ ২ জঙ্গি। আরও জঙ্গির লুকিয়ে থাকার আশঙ্কা। এলাকা ঘিরে তল্লাশি সিআরপিএফ – জম্মু কাশ্মীর পুলিশের।
প্রার্থী তালিকা ঘোষণা হওয়ার পর হতাশা রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতি রাজকমল পাঠক। রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিলেন তিনি।
কেউ পচা আলুর ঝোল খেতে চাইলে খাক। উন্নয়নের নিরিখে ভোট হবে। সেই ভোটে তৃণমূল কংগ্রেস জয়ী হবে। কোচবিহারের বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামানিককে কটাক্ষ উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের।
তৃণমূলের বহিস্কৃত নেতা নিশীথ প্রামানিক কোচবিহারের বিজেপি প্রার্থী। প্রতিবাদে দলীয় অফিস ভাঙচুর। পদত্যাগের হুঁশিয়ারী জেলার বহু বিজেপি নেতার। জেলা সভাপতির গাড়ি ঘিরে বিক্ষোভ।
বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষকে শুভেচ্ছা। ঘাটালের উন্নয়নে সাহায্য করেছিলেন তিনি। রাজনৈতিক লড়াই হলেও সৌজন্য থাকবে। ট্যুইটারে ভারতী ঘোষকে শুভেচ্ছা জানালেন তৃণমূল প্রার্থী দেব।
পশ্চিমবঙ্গের ২৮ আসনে বিজেপির প্রার্থী তালিকা প্রকাশ। প্রার্থী তালিকায় চমক। ঘাটালে ভারতী ঘোষ। ব্যারাকপুরে প্রার্থী অর্জুন সিং। হুগলি কেন্দ্রে লকেট চট্টোপাধ্যায়।
দলে আরও ব্রাত্য হলেন আডবানী। এবার গান্ধীনগর কেন্দ্রে বর্ষীয়ান নেতা আডবানীকে টিকিট দিল না বিজেপি। আডবানীর গান্ধীনগর কেন্দ্রে ভোটে লড়বেন অমিত শাহ।
লোকসভা ভোটের প্রথম প্রার্থী তালিকা প্রকাশ বিজেপির। বারানসি থেকেই ভোটে লড়বেন মোদী। রাহুলের বিরুদ্ধে আমেঠিতে প্রার্থী স্মৃতি ইরানি।

কালো টাকা রুখতে এবার উচ্চ পর্যায়ের কমিটি গড়ল কমিশন

ওয়েব ডেস্ক: লোকসভা ভোটের দিনক্ষণ ঘোষনা হতেই দেশজুড়ে রাজনৈতিক দলগুলির মধ্যে নির্বাচনী তৎপরতা তুঙ্গে। এদিকে কড়া হাতে নির্বাচনী প্রক্রিয়া পরিচালনা করতে বদ্ধ পরিকর নির্বাচন কমিশন। লোকসভা ভোটে কালো টাকার ব্যবহার রুখতে গঠন করা হল একটি উচ্চপর্যায়ের কমিটি। মঙ্গলবার এক বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এই কমিটির নাম দেওয়া হয়েছে, মাল্টি ডিপার্টমেন্ট কমিটি অন ইলেকশন ইন্টেলিজেন্স। কমিটিতে রয়েছে, সিবিআই, ইডি, সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ডিরেক্ট ট্যাক্সেস, সেন্ট্রাল বোর্ড অফ ইনডিরেক্ট ট্যাক্সেস, ডিরেক্টরেট অফ রেভিনিউ ইন্টালিজেন্স, সেন্ট্রাল ইকোনমিক ইন্টালিজেন্স ব্যুরো, ফিনান্সিয়াল ইন্টালিজেন্স ইউনিট।

এর পাশাপাশি ওই কমিটিতে রয়েছেন বেশ কয়েকজন আমন্ত্রিত সদস্য। তারা হলেন, বিএসএফের ডিজি রজনীকান্ত মিশ্র, সিআরপিএফের ডিজি রাজীব ভাটনগর, সিআইএসএফের ডিজি রাজেশ রঞ্জন, নার্কোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর ডিজি অভয় কুমার, আরপিএফের ডিজি অরুণ কুমার এবং ব্যুরো অফ সিভিল অ্যাভিয়েশন সিকিউরিটির ডিজি রাকেশ আস্থানা। কমিশন সূত্রে খবর, ভোটারদের প্রভাবিত করতে টাকা ব্যবহার রুখতে যাবতীয় ধরণের ব্যবস্থা নেবে এই কমিটি। এই কমিটির নজরদারি সবচেয়ে বেশী হবে তেলেঙ্গানা, কর্ণাটক, অন্ধ্রপ্রদেশ এবং তামিলনাড়ুতে। কমিশন সুত্রে আরও খবর, এই কমিটিতে থাকবেন বিভিন্ন ব্যাঙ্কের শীর্ষ আধিকারিকরা।