Date : 2021-09-20

ধূপগুড়িতে ধূন্ধুমার। টিকাকরণ নিয়ে আট দফা নির্দেশ নবান্নের।

সঞ্জু সুর, রিপোর্টার : কুপন ছাড়া আর কোনো টিকা করণ নয়। একমাত্র কুপন হাতে থাকলেই টিকা করণ কেন্দ্রে ঢুকতে পারা যাবে। মঙ্গলবার জলপাইগুড়ি জেলার ধূপগুড়িতে টিকা করণকে কেন্দ্র করে চরম বিশৃংখলার ছবি সামনে আসার পর এমন‌ই সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। এদিন‌ই তড়িঘড়ি জেলাশাসকদের সাথে বৈঠক করেন মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী। সেই বৈঠকেই টিকা করণ নিয়ে বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, যার মধ্যে কুপন চালু করার বিষয়টি অন্যতম। এছাড়াও যে যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে সেগুলো হলো :-

১) এক থেকে দু’দিন আগে কুপন বিলি করা হবে। কুপন বিলি করার কাজে জেলা স্বাস্থ্য দফতরের কর্মিদের পাশাপাশি আইসিডিএস কর্মিদের কাজে লাগাতে হবে।
২) ভ্যাক্সিনেশন সেন্টার বা টিকাকরণে জায়গা নির্ধারনের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত জেলাশাসক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বা জেলার সহ স্বাস্থ্য আধিকারিকদের সহযোগিতা নিতে হবে।
৩) দুয়ারে সরকার ক্যাম্পের মতো বুথে বুথে টিকা করণ কেন্দ্র করা যায় কি না সেটা দেখতে হবে।
৪) খেয়াল রাখতে হবে যাতে এলাকার বড় মাঠ বা বড় স্কুলে টিকা করণ কেন্দ্র করা যায় কি না।
৫) প্রতিটি টিকা করণ কেন্দ্রে ভিড় সামলানোর জন্য প্রয়োজনীয় পুলিশ মোতায়েন করতে হবে।
৬) প্রতিটি থানার আইসি বা ওসি দের তার থানা এলাকার টিকা করণ কেন্দ্র সম্মন্ধে সম্যক ধারণা রাখতে হবে।

এমনিতেই রাজ্যের প্রয়োজনের তুলনায় অনেক কম ডোজ টিকা পাঠাচ্ছে রাজ্য কে। সেই নিয়ে ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকটি চিঠি প্রধানমন্ত্রী কে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমন কি দিল্লিতে গিয়ে সরাসরি প্রধানমন্ত্রী কে এই বিষয়টি দেখতে অনুরোধ ও করেছিলেন তিনি। তা স্বত্তেও পর্যাপ্ত টিকা এসে পৌঁছাচ্ছে না। ফলে স্বাভাবিকভাবেই অনেক জায়গায় মানুষের ধৈর্য্যের বাঁধ ভাঙছে। তবে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে এসব ক্ষেত্রে পুলিশকে মানবিক ব্যবহার করতে বলা হয়েছে।