Date : 2024-02-24

নজিরবিহীন ঘটনা বিধানসভায়! শাহী সমাবেশের আগে শাসক, বিরোধীদের স্লোগানে তপ্ত আইনসভা।

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়, সাংবাদিক : রাত পোহালেই ধর্মতলায় বিজেপির ‘শাহি সভা’। কলকাতা হাইকোর্টের দুই বেঞ্চ থেকে এই ‘হাইভোল্টেজ’ সভার অনুমতি এনেছে বিজেপি। দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের আসার কথা এই অনুষ্ঠানে। স্বভাবতই নভেম্বরের শেষবেলায় রাজনীতির পারদ চড়ছে কলকাতায়। এরইমধ্যে শুরু হয়েছে বিধানসভা অধিবেশন। আর সেই অধিবেশন চলাকালীন বিধানসভায় প্রতিবাদের সুর চড়াবে শাসকদল তৃণমূল। তৃণমূল সূত্রে খবর, বুধবার ধর্মতলায় অমিত শাহের সভা চলাকালীন বিধানসভায় কালো পোশাক পরে ধরনায় বসছে তৃণমূল।

২৯ নভেম্বর কলকাতায় সভা করবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। বিজেপির দাবি, ১০০ দিনের কাজ-সহ নানান প্রকল্পে দেদার দুর্নীতি হয়েছে বাংলায়। রাজ্যের তরফে খরচের হিসেব দেওয়া হচ্ছে না। তাই কেন্দ্রের তরফে টাকা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এই ‘তত্ত্ব’ প্রমাণ করতে ধর্মতলায় সভা করছে বিজেপি। সেখানে থাকবেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এই সভার দিনই পালটা ‘কালা দিবস’ পালন করবে তৃণমূল।

শুক্রবার নজিরবিহীন ভাবে রাজ্যের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ এনে বিধানসভায় মুলতুবি প্রস্তাব আনতে চেয়েছিল বিজেপি পরিষদীয় দল। কিন্তু দুর্নীতি ইস্যুতে মুলতবি প্রস্তাব শুধু পড়তে দেওয়া হয়। তা নিয়ে আলোচনার অনুমতি না দেওয়ায় অধ্যক্ষের সামনেই অধিবেশনের মধ্যে শুভেন্দু অধিকারী-সহ বিজেপি বাকিরা চোর স্লোগান দিতে থাকে। এর পরই অধিবেশন থেকে ওয়াক আউট করেন তাঁরা। অধিবেশন কক্ষের বাইরেও স্পিকার যখন সামনে দিয়ে যাচ্ছিলেন তখন আবারও চোর স্লোগান দেওয়া হয়। সেই নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছে। এদিকে এপ্রসঙ্গে অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্য়ায় বলেন, “সবকিছুর একটা নির্দিষ্ট প্রক্রিয়া আছে। যারা এরকম মুলতুবি প্রস্তাব আনছে, তাঁদের জিজ্ঞাসা করুন এটা কি আদৌও উচিত?”