Date : 2022-10-01

একাদশে ভর্তিতে বেসরকারি স্কুলের পড়ুয়াদের সাহায্যের হাত শহরের একাধিক সরকারি স্কুলের।

নাজিয়া রহমান, সাংবাদিক : প্রকাশিত হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ বোর্ডের মাধ্যমিকের ফল। তবে দেরিতে পরীক্ষা হওয়ায় এখনও প্রকাশিত হয়নি আইসিএসই ও সিবিএসই বোর্ডের দশমের পরীক্ষার ফল। যদিও বেসরকারি স্কুলের কোনও পড়ুয়া একাদশে বোর্ড বদল করতে চাইলে সাহায্যের হাত বাড়াবে বহু সরকারি স্কুল। ৩ জুন প্রকাশিত হয়েছে মাধ্যমিকের ফল। শুরু হয়েছে একাদশে ভর্তি প্রক্রিয়া। প্রতিবছরই সংখ্যায় কম হলেও আইসিএসই ও সিবিএসই বোর্ডের পড়ুয়া বোর্ড পরিবর্তন করে সরকারি বা সরকার সাহায্যপ্রাপ্ত স্কুলে ভর্তি হয়। তবে এবার মাধ্যমিক পরীক্ষার বেশ কিছুদিন পরেই শুরু হয় আইসিএসই ও সিবিএসই বোর্ডের দশম শ্রেণির পরীক্ষা। জানা গেছে আইসিএসই ও সিবিএসই বোর্ডের দশম শ্রেণির ফলপ্রকাশ জুলাই মাসে। করোনাকালে অনেক পরিবারেই অর্থনৈতিক অবস্থা খারাপ হওয়ায় ইংরেজি মাধ্যম স্কুলে পড়ানোর খরচ চালানো কঠিন হয়ে পড়েছে।

উচ্চশিক্ষার ক্ষেত্রে খরচটা আরও বেশি বলে মত বিশেষজ্ঞমহলের। সরকারি ও সরকার-পোষিত স্কুলগুলির প্রধান শিক্ষকেরা জানাচ্ছেন, সংখ্যায় কম হলেও কিছু ছাত্রছাত্রী আছে, যারা সিবিএসই এবং আইসিএসই বোর্ড থেকে রাজ্যের সরকারি এবং সরকার-পোষিত স্কুলগুলিতে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হতে আসে। তাদের মতে, প্রধানত খরচের কারণেই অনেকে সরকারি স্কুলে পড়তে আসে। সরকারি স্কুলে একাদশে ভর্তির ক্ষেত্রে যেখানে ন্যূনতম ২৪০-২৯৫ টাকা খরচ করতে হয়, সেখানে বেসরকারি স্কুলগুলিতে তা গিয়ে দাঁড়ায় লাখখানেক টাকায়। ফি-র এই ফারাকের জন্যই অনেক পড়ুয়া একাদশে বেসরকারি স্কুল ছেড়ে সরকারি স্কুলে ভর্তি হতে আশে। সরকারি স্কুলে একাদশে ভর্তি প্রক্রিয়া প্রায় শেষ। স্কুল খুললেই শুরু হবে পঠন পাঠন। যা আইসিএসই ও সিবিএসই বোর্ডের দেরিতে ফলপ্রকাশের ফলে কিছুটা সমস্যায় ফেলতে পারে সরকারি স্কুলে ভর্তি হতে আসা ইচ্ছুক পড়ুয়াদের বলে মনে করছেন শিক্ষকমহলের একাংশ। তবে এবারও বেসরকারি স্কুলের কোনও পড়ুয়া একাদশে সরকারি স্কুলে পড়তে এলে, সরকারি নির্দেশ মেনে তার দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিতে প্রস্তুত অধিকাংশ স্কুল। প্রতি বছরই সরকারি স্কুলে ইংরেজি মাধ্যম বোর্ডের পড়ুয়ারা বোর্ড বদল করে উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের অধীনে সরকারি স্কুলে একাদশে ভর্তি হয়। বেসরকারি বোর্ডের দশম শ্রেণির ফল মধ্যশিক্ষা পর্ষদের থেকে দেরিতে প্রকাশিত হচ্ছে তাই শহরের অনেক স্কুলেই বেসরকারি স্কুল থেকে আসা পড়ুয়াদের সাহায্যের জন্য একাদশে আসন সংরক্ষণ করে রাখার সিদ্ধান্তও নিয়েছে।