Date : 2023-03-21

দক্ষিণ ভারতের চন্দন গাছের চাষ এবার হবে দক্ষিণ বঙ্গে। পাইলট প্রজেক্ট বন দফতরের

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক : রাজ্যে এবার হবে চন্দন গাছের চাষ। তবে যে সে চন্দন কাঠ নয়, একেবারে ‘শ্বেত চন্দন’ ও ‘রক্ত চন্দন’-এর চাষ করা হবে রাজ্যের দক্ষিণ বঙ্গের জঙ্গলে। পাইলট প্রজেক্ট হিসাবে এই কাজের জন্য দক্ষিণ বঙ্গের ২৫ টি জঙ্গলকে বাছাই করা হয়েছে।

চন্দন দস্যু (!) বীরাপ্পনের নাম তো প্রায় সবাই জানেন। মূলতঃ রক্ত চন্দনের তস্করি করে বিপুল অর্থ কামানোর পাশাপাশি দক্ষিণ ভারতের বিভিন্ন জঙ্গলে একটা সমান্তরাল প্রশাসন কায়েম করেছিলেন তিনি। সম্প্রতি আল্লু অর্জুন অভিনীত দক্ষিণ ভারতের একটি সিনেমায় রক্ত চন্দনের চোরাচালান ছিলো মূল বিষয়বস্ত। সারা দেশ ও সারা বিশ্ব জানে দক্ষিণ ভারতের জঙ্গলগুলি রক্ত চন্দনের মূল আড়ৎ। এবার এই বাংলাতেই সেই ‘রক্ত চন্দন’ ও ‘শ্বেত চন্দন’ পাওয়া যাবে।

সম্প্রতি কিছু বাঙালি গবেষক দাবি করেন এরাজ্যে‌ই সফলভাবে চন্দন গাছের চাষ করা সম্ভব। সেই সম্ভাবনার কথা মাথায় রেখেই রাজ্য বন দফতর রাজ্যের দক্ষিণবঙ্গের ২৫ টা জঙ্গলকে বেছে নিয়েছে। এই বিষয়ে বনমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, “আমরা পাইলট প্রজেক্ট হিসাবে এই কাজ করবো। যে কাজের জন্য দক্ষিণবঙ্গের বিশেষ করে জঙ্গলমহলের কিছু জঙ্গলকে বেছে নেওয়া হয়েছে।” বন দফতর সূত্রে খবর, পশ্চিম মেদিনীপুর জেলায় ১৫ হাজার শ্বেত চন্দন ও ১০ হাজার রক্ত চন্দনের চারা লাগানো হবে। পার্শ্ববর্তী ঝাড়গ্রাম জেলায় ৬ হাজার শ্বেত চন্দন ও ১০ হাজার রক্ত চন্দনের চারা লাগানো হবে। চারা গাছ লাগানো, তার পরিচর্যা করা, তাকে বড় করে তোলা, সব ক্ষেত্রেই বন দফতর প্রত্যক্ষভাবে নজরদারি করবে। এই কাজে স্থানীয় মানুষকেও জড়িয়ে নেওয়া হবে যাতে গাছগুলোকে বড় তোলার ক্ষেত্রে কোনো সমস্যা না হয়। আন্তর্জাতিক বাজারে শ্বেত চন্দন ও রক্ত চন্দনের যা বাজার দর, তাতে আগামিদিনে এই পাইলট প্রজেক্ট সফল হলে ওইসব এলাকার আর্থ সামাজিক চিত্র পাল্টে যাবে বলেই মত বন দফতরের আধিকারিকদের।