Date : 2024-04-14

পুলিশের শূণ্য পদে নিয়োগ তিন মাসেই। নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর

সঞ্জু সুর, সাংবাদিক ঃ অর্থ দফতরের থেকে নিয়োগের ছাড়পত্র পেলেও নিজেদের গাফিলতির কারণে সেই নিয়োগ হচ্ছে না। পুলিশ ফোর্সে এই নিয়োগ না হ‌ওয়ায় সমস্যায় পড়তে হচ্ছে প্রশাসনকেই। ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী আগামি তিন মাসের মধ্যে পুলিশের শূণ্য পদে নিয়োগ প্রক্রিয়া শেষ করতে হবে বলে নির্দেশ দিলেন। বৃহস্পতিবার নবান্ন সভাঘরে এক বৈঠকে এই নির্দেশ দেন তিনি।

দীর্ঘদিন পুলিশ ফোর্সে কোনো নতুন স্থায়ী নিয়োগ হয় নি রাজ্যে। শেষবার ২০১২ সালে কলকাতা পুলিশের এস‌আই পোষ্টে কিছু নিয়োগ হয়। অন্যদিকে কলকাতা পুলিশে‌ই কনস্টেবল পোষ্টে নিয়োগ হয় ২০১৬ সাল নাগাদ। তারপর থেকে এক প্রকার সিভিক পুলিশ বা পরবর্তীকালে সিভিক ভলান্টিয়ার নিয়োগ করা হয়েছে প্রচুর, কিন্তু স্থায়ী নিয়োগ হয় নি। পুলিশ প্রশাসন সূত্রে খবর, এই মুহূর্তে কলকাতা পুলিশের বিভিন্ন স্তরে প্রায় ১৩ হাজার শূণ্য পদ রয়েছে, রাজ্য পুলিশে সেই সংখ্যা হলো প্রায় ৪০ হাজারের বেশি। কিন্তু এই বিশাল সংখ্যক নিয়োগ তো মাত্র তিন মাসের মধ্যে সম্ভব নয়। এদিকে মুখ্যমন্ত্রী বলছেন, আগামি তিন মাসের মধ্যে পুলিশের শূণ্য পদে নিয়োগ প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করতে হবে। কি করে তা সম্ভব ! এই প্রসঙ্গে রাজ্য পুলিশের এক কর্তা জানালেন, মুখ্যমন্ত্রী মূলতঃ সেই নিয়োগের কথা বলেছেন যে নিয়োগের ব্যাপারে ইতিমধ্যেই অর্থ দফতরের ছাড়পত্র পাওয়া গিয়েছে। আর এই সংখ্যাটি হলো প্রায় সাড়ে তিন হাজার, যে নিয়োগ তিন মাসের মধ্যে করা সম্ভব বলেই মত তাঁর। প্রসঙ্গত রাজ্য পুলিশে ২০২০ সালে একটি পরীক্ষা হয়। রেজাল্ট বের হয় ২০২২ এ। কিন্তু কোনো প্রশিক্ষণ এখনও শুরুই হয় নি। এদিকে ২০২৩ সালে মহিলা কনস্টেবল পদে নিয়োগের জন্য নতুন করে আবেদনপত্র নেওয়া শুরু হয়েছে। যা শেষ হবে মে মাসে। রাজ্যে এই মুহূর্তে যে তিন থেকে চারটি পুলিশ প্রশিক্ষণ কেন্দ্র রয়েছে সেখানে সশস্ত্র পুলিশের ক্ষেত্রে এক বছরের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। সব কটি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র মিলিয়ে বছরে সর্বাধিক সাড়ে তিন হাজার পুলিশ কর্মিকে প্রশিক্ষণ দেওয়া সম্ভব।