Date : 2019-11-22

হরিণ শিকার করে কার্টুন দেখার শাস্তি পেল অপরাধী, আজব সাজা আদালতের

ওয়েব ডেস্ক: পড়া না পাড়লে স্কুলে ক্লাসের বাইরে কান ধরে দাঁড়িয়ে থাকার অভিজ্ঞতা সবারই অল্প বিস্তর আছে। কিন্তু কখনও শুনেছেন, বিশ্বের কোন আদালত এরকমই অদ্ভুত শাস্তি দিতে পারে। কি আজব! হরিণ শিকারের শাস্তিতে দেখতে হল ডিজনির কার্টুন‘ব্যাম্বি’। অবৈধ ভাবে হরিণ শিকারের দায়ে শাস্তির হাত থেকে রেহাই মেলেনি অভিনেতা সালমান খানের। মার্কিন য়ুক্তরাষ্ট্র কি আর ছাড় দেয়? যুক্তরাষ্ট্রের মিসৌরি অঙ্গরাজ্যের বাসিন্দা ডেভিড বেরি জুনিয়র নামে এক মার্কিন যুবক নাগরিক কয়েকশো হরিন অবৈধ ভাবে শিকার করার অপরাধে মার্কিন আদালত তাকে কি শাস্তি দিল জানেন? শাস্তি কারাদন্ডেই শেষ হল না। শুনলে অবাক হবেন, অন্তত একমাস তাকে হরিণ নিয়ে তৈরী ডিজনির কার্টুন ‘ব্যাম্বি’ দেখতে হবে বলে জানিয়েছে মার্কিন আদালত। আদালত এই জনপ্রিয় কার্টুন দেখিয়ে অপরাধীর মনে পশুদের জন্য বিশেশ করে হরিণের জন্য ভালোবাসা তৈরি করতে পারবে কিনা সেটা অবশ্য জানা নেই।

গাধার সঙ্গে হাঁটার নিদান! শুনেছেন?
হ্যাঁ, এরকম সাজার ঘটনা এটাই প্রথম নয়, ২০০৩ সালে শিকাগোর একটি চার্চে যিশুর মুর্তি নষ্ট ও চুরী করায় ৪৫দিনের সাজা দেওয়া হয় দুই কিশোরকে। পাশাপাশি তাদের শহরের কেন্দ্রস্থলে একটি গাধার সঙ্গে হাঁটার আদেশ দেয় আদালত। শুধু তাই নয় গলায় প্লাকার্ড ঝুলিয়ে জেসিকা ল্যাঞ্জ এবং ব্রায়ান প্যাট্রিক নামে ওই দুই অরপরাধীকে লিখতে হয়েছিল ‘ এ ধরণের বোকার মতো অপরাধ করার জন্য দুঃখিত’। ১৭ বছরের দুই কিশোরের চুরী করার লজ্জা বোঝাতে বেশ অভিনব শাস্তি ছিল।

পড়াশুনো শিখে নিয়মিত দশ বছর চার্চে যেত হবে।
১৭ বছরের টেইলর আলফ্রেড মদ্যপান করে গাড়ি চালানোর সময় দুর্ঘটনায় তার একজন বন্ধু নিহত হয়। তার বন্ধু পেশায় একজন ইঞ্জিনিয়ার ছিলেন। আর সেই ইঞ্জিনিয়ার বন্ধুর মৃত্যুতে সাজার তালিকাটাও বেশ অদ্ভুত ছিল। আদালত বলে তাকে স্কুল থেকে ডিগ্রি নিতে নির্দেশ দেয়। কারিগরি শিক্ষার ডিগ্রি নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে একবছর মাদক, মদ বা নিকোটিনের নিয়মিত পরীক্ষা অংশ নিতে ও হাতে মাদক ও নিকোটিনের ব্রেসলেট পড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের সভায় যাওয়ার আর অবশ্যই আগামী দশ বছর নিয়মিত চার্চে অংশ নেওয়ার নির্দেশ দেয়।

চাকরি খুঁজে নিতে হবে
এখানেই শেষ নয়, স্পেনের বেকার যুবক আন্দালুসিয়ায় তার বাবা-মা এর বিরুদ্ধে খোরপোষ না দেওয়ার অভিযোগে মাসে ৩৫৫ পাউন্ড দাবি করে আদালতে মামলা করেন। পারিবারিক আদালত উল্টে তাকে ৩০ দিনের মধ্যে চাকরী খুঁজে বাবা-মায়ের বাড়ি ছেড়ে দেওয়ার নিদান দেয়।

শুনতে হবে ক্লাসিকাল মিউজিক
গাড়িতে জোরে গান বাজানোর অভিযোগে ২০০৮ সালে অ্যান্ড্রু ভিক্টরকে ১২০ পাউন্ড জরিমানা করে মার্কিন আদালত। গাড়ি চালানোর সময় তিনি র‍্যাপ সঙ্গীত শুনছিলেন তাই আদালত তাকে ক্লাসিকাল মিউজিক শুনার শাস্তি দেয়। মাত্র ১৫ মিনিট ক্লাসিক্যাল মিউজিক শুনতে পেরেছিলেন ভিক্টর। যদি তিনি বিশ ঘণ্টা বিটোভেন, বাচ এবং চোপিনের ক্লাসিক্যাল সঙ্গীত শুনে কাটাতে পারেন, তাহলে তার জরিমানা ৩০ পাউন্ড করে দেয়া হবে। বিচারকের কি অদ্ভুত দাবী, এতে ভিক্টর বুঝবে যে ধরণের সঙ্গীত সে পছন্দ করে না, তা জোর করে শুনতে কেমন লাগে?

শাস্তি অনেক রকমের হয়, তবে এই ধরনের আজব শাস্তি যেমন অদ্ভুত তেমন মজার।