Date : 2019-12-15

বুলবুলে ক্ষতিগ্রস্ত অঞ্চলে পিছিয়ে গেল পরীক্ষা…

ওয়েব ডেস্ক:- ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড় বুলবুল কেড়ে নিয়েছে ঘর-বাড়ি, আসবাবপত্র। নষ্ট হয়েছে বই-খাতা ও জরুরি নথি-পত্র, তাই বুলবুল বিধ্বস্ত গ্রামের পড়ুয়াদের এখন দিশাহারা অবস্থা। সামনেই বার্ষিক পরীক্ষা, মাধ্যমিকের টেস্ট পরীক্ষা, প্রস্তুতি তো দূরের কথা বই খাতা কিছুই নেই তাদের কাছে। এই পরিস্থিতিতে পরীক্ষা পিছিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার। ২৬ তারিখ অধিকাংশ সরকারি স্কুলে মাধ্যমিকের টেস্ট পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা ছিল, সেই তারিখ পিছিয় ২ ডিসেম্বর করা হল। বৃহস্পতিবার শিশু দিবস উপলক্ষ্যের নবান্নে মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে আসেন বিভিন্ন স্কুলের পড়ুয়া ও শিক্ষকরা। সেখানেই মুখ্যমন্ত্রী জানান, বুলবুল বিধ্বস্ত অঞ্চলে সব স্কুলের পরীক্ষা ফিছিয়ে দেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, গত সপ্তাহের শেষেই ঘুর্ণিঝড় বুলবুলের তাণ্ডবে কার্যত লন্ডভন্ড হয়ে গিয়েছে সুন্দরবন সংলগ্ন অঞ্চল, দুই মেদিনীপুর ও দুই ২৪ পরগণা। ঘর-বাড়ি, চাষের জমি নষ্ট হয়ে সর্বহারা দশায় দিন কাটাচ্ছেন সেখানকার বহু মানুষ। ঝড়ের তাণ্ডবের দিন মাঝরাত পর্যন্ত নবান্নের কন্ট্রোল রুমে বসে ত্রাণ ও উদ্ধারকাজ পরিচালনা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী।

ধেয়ে আসছে ‘বুলবুল’, আছড়ে পড়তে পারে সোমবার

দফায় দফায় বৈঠক করেছিলেন প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে। পরিস্থিতি শান্ত হতেই ত্রাণ পৌঁছে দেওয়ার জন্য তৎপর হয় রাজ্য প্রশাসন। মুখ্যমন্ত্রী নিজে উত্তরবঙ্গ সফর বাতিল করে পৌঁছে যান ঘূর্ণিঝড় কবলিত অঞ্চলে। আকাশ পথে গোটা অঞ্চল পরিদর্শন করেন। ৯টি জেলার জেলা শাসকের রিপোর্ট অনুযায়ী, ৩ লক্ষেরও বেশি মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।