Date : 2024-02-24

বুলেট ট্রেন এবার তিলোত্তমায়

সঞ্জনা লাহিড়ী, সাংবাদিক- প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মস্তিস্কপ্রসূত বন্দে ভারত গোটা দেশে ইতিমধ্যেই সাড়া ফেলেছে। শুধু তাই নয়, সবচেয়ে দামী মহারাজা এক্সপ্রেসও দেশ- বিদেশের পর্যটকের কাছে আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে। এবার ভারতীয় রেলের মুকুটে নয়া পালক। বিদেশী প্রযুক্তি নির্ভর দ্রুত গতি সম্পন্ন বুলেট ট্রেন ভারতীয় রেল পরিষেবায় জায়গা পেতে চলেছে। প্রাথমিকভাবে মুম্বই- আমেদাবাদ রুটে বুলেট ট্রেন শুরু হলেও আগামীতে কলকাতাতেও ছুটবে উন্নত প্রযুক্তির এই ট্রেন। রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব ইতিমধ্যেই বুলেট ট্রেনের জন্য মোট ৪ টি রুট চালু করার বিষয়কে তুলে ধরেছেন। এই রুট গুলির মধ্যে রয়েছে শহর কলকাতাও। এমনকি হাওড়া স্টেশন দিয়েই বুলেট ট্রেন পরিষেবার পরিকল্পনা করেছে রেল কর্তৃপক্ষ।

বুলেট ট্রেন যে আদপেই বিদেশী প্রযুক্তি সম্পন্ন তা ট্রেনটি দেখলেই বোঝা যাবে। রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব নিজের এক্স হ্যান্ডেলে বুলেট ট্রেনের একটি গ্রাফিক্স ভিডিও পোস্ট করেছেন। এই ভিডিওতে দেখা গেছে মেরুন-সাদা রঙের ট্রেনটি একদম বিদেশী ধাঁচের। মাত্র ২ ঘণ্টায় ৫০৮ কিলোমিটার পথ যাত্রা করবে এই ট্রেন। ট্রেনের গতিবেগ ঘণ্টায় ৩২০ কিলোমিটার হবে। বুলেট ট্রেনের প্রযুক্তি যেহেতু একদম আলাদা তাই এই ট্রেনের জন্য আলাদা করিডর তৈরি করা হচ্ছে রেল মন্ত্রকের তরফ থেকে। যা ২৪ টি নদীর সেতু, ২৮ টি স্টিলের ব্রিজ ও ৭টি সুড়ঙ্গের মধ্য দিয়ে যাবে। বুলেট ট্রেন বিশ্ব ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের কাছে একটি বিস্ময়।

মুম্বই- আমেদাবাদের মধ্যে বুলেট ট্রেনের রুট ছাড়াও আরও যে সব রুট গুলি থাকছে তা হল, ১,৪৭৪ কিলোমিটার দীর্ঘ দিল্লি- কলকাতা, ১,৪০২ কিলোমিটার দীর্ঘ দিল্লি- মুম্বই এবং ১,৩১৭ কিলোমিটার দীর্ঘ মুম্বই- চেন্নাই। এখনও পর্যন্ত মোট ৭ টি রুটের উপর সমীক্ষা করা হয়েছে। এই রুটগুলি হল, ৮১৩ কিলোমিটার দীর্ঘ দিল্লি- বারাণসী, ৮৭৮ কিলোমিটার দীর্ঘ দিল্লি- আমেদাবাদ, ৭৬৮ কিলোমিটার দীর্ঘ মুম্বই- নাগপুর, ৬৭১ কিলোমিটার দীর্ঘ মুম্বই- হায়দ্রাবাদ, ৪৩৫ কিলোমিটার দীর্ঘ চেন্নাই- বেঙ্গালুরু- মহীশূর, ৪৫৯ কিলোমিটার দীর্ঘ দিল্লি- চণ্ডীগঢ়- অমৃতসর এবং ৭৬০ কিলোমিটার দীর্ঘ বারাণসী-হাওড়া।