Date : 2024-04-13

বকেয়া একশো দিনের টাকা ফেরৎ। সবচেয়ে বেশি বরাদ্দ অভিষেকের জেলার জন্য।

পূর্ব ঘোষণা মত রাজ্যে ১০০ দিনের কাজের বঞ্চিত জব কার্ড হোল্ডারদের টাকা সোমবার থেকে ফেরত দেওয়ার কাজ শুরু হচ্ছে। রাজ্যের ২৩ টি জেলার জন্য মোট বরাদ্দ করা হয়েছে ২,৬৫০ কোটি টাকার কিছু বেশি অর্থ। ১ মার্চের মধ্যেই সব প্রাপকের ব্যাংক একাউন্টে যাতে এই টাকা পৌঁছে যায় তার নির্দেশ পাঠানো হয়েছে জেলাশাসকদের।

গত রবিবার সিউড়ির সভামঞ্চ থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন ২৬ তারিখ থেকে বঞ্চিত জব কার্ড হোল্ডারদের ব্যাংক একাউন্টে সরাসরি টাকা পৌঁছে দেওয়ার কাজ শুরু হবে। মুখ্যমন্ত্রী এটাও জানিয়েছিলেন যে প্রায় ২৪ লক্ষ ৫০ হাজার বঞ্চিত জব কার্ড হোল্ডারদের এই টাকা দেওয়া হবে। নবান্ন ও পঞ্চায়েত দপ্তর সূত্রে খবর আগামীকাল অর্থাৎ সোমবার থেকে রাজ্যের ২৩ টি জেলাতে একযোগে এই টাকা বঞ্চিত জব কার্ড হোল্ডারদের ব্যাঙ্ক একাউন্টে সরাসরি পৌঁছে দেওয়ার কাজ শুরু হচ্ছে।

রাজ্য পঞ্চায়েত ও গ্রাম উন্নয়ন দপ্তর সূত্রে খবর এই কাজের জন্য যে টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে প্রাথমিকভাবে তার পরিমাণ হলো ২,৬৫০ কোটি ৬০ লক্ষ ১৮ হাজার ৪৯ টাকা। জেলাওয়াড়ি হিসাব করলে দেখা যাচ্ছে এই বিপুল পরিমাণ টাকার অংশ হিসেবে সবচেয়ে বেশি বরাদ্দ করা হয়েছে দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার জন্য। এই জেলার জন্য বরাদ্দ প্রায় ৩৪৬ কোটি ১২ লক্ষ ৭৪ হাজার ৫০৪ টাকা। এরপরেই রয়েছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার বরাদ্দ। পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার জন্য আপাতত বরাদ্দ অর্থ মূল্য হল ২৮১ কোটি ১৩ লক্ষ ৯,৮২৭ টাকা। তৃতীয় সর্বাধিক অর্থ (২২১ কোটি ৯১ লক্ষ ২৮৭ টাকা) বরাদ্দ করা হয়েছে কোচবিহার জেলার জন্য। এছাড়া পূর্ব মেদিনীপুরের জন্য ১৯০ কোটি, আলিপুরদুয়ার জেলা ১৫৬ কোটি, মালদহ জেলা ১৪৯ কোটি, বীরভূম ১৩৬ কোটি, উত্তর ২৪ পরগনা ১২৬ কোটি, পুরুলিয়া ১১৮০০ কোটি, মুর্শিদাবাদ ১১১ কোটি, বাঁকুড়া ১০৩ কোটি প্রভৃতি। তবে পঞ্চায়েত দফতর সূত্রে খবর, আপাতত যে অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছে এটা প্রাথমিকভাবে সরকারের কাছে যে তালিকা তৈরি হয়েছে সেই অনুযায়ী এই টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। এখনো তালিকা চূড়ান্ত করার কাজ চলছে, ফলে পরবর্তীকালে এই প্রাপকের সংখ্যা ও অর্থ প্রতিটি জেলার জন্যই বাড়তে পারে।