Date : 2020-10-26

শহরে প্রথম ‘গ্রিন হসপিটাল’

কলকাতা: তিলোত্তমা কলকাতাকে ঢেলে সাজিয়ে তুলতে ও শহরে সৌন্দর্যায়নের জন্য “ক্লিন সিটি, গ্রিন সিটি” প্রোজেক্ট নিয়ে রাজ্য সরকার ও কলকাতা পুরসভার তরফে অনেক আগেই একগুচ্ছ পরিকল্পনার কথা ঘোষণা করা হয়েছিল। রাস্তাঘাট, ফুটপাত, পাঁচিল সহ শহরের সমস্থ অঞ্চলকে পরিচ্ছন্ন ও সুন্দর রাখতে নীল সাদা রঙে সাজিয়ে তোলা হয়েছে। এবার শহরের সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল এনআরএসকে ‘গ্রিন হসপিটালে’ পরিণত করার উদ্যোগ নিল এনআরএস কর্তৃপক্ষ। আবর্জনা মুক্ত, পরিচ্ছন্ন, সবুজ ও নির্মল হাসপাতাল হবে এনআরএস, এই মর্মে হাসপাতালে আগত রোগীর পরিবারের জন্য এবার বেশ কয়েকটি বিধিনিষেধ আরোপ করতে চলেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। নতুন বছরে দূরদূরান্ত থেকে হাসপাতালে আসা রোগী ও তাদের পরিবারের জন্য জারি করা হয়েছে বেশ কয়েকটি নিয়মাবলী।

১.হাসপাতাল চত্বরে ধুমপান নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

২.হাসপাতালে ব্যবহার করা যাবেনা প্লাস্টিকের ব্যাগ ও প্যাকেট।

৩.হাসপাতাল চত্বরে যাতে প্লাস্টিকের ব্যাগ বা প্যাকেট নিয়ে কেউ প্রবেশ না করতে পারে তার জন্য প্রবেশ পথে থাকবে চেকিং-এর ব্যবস্থা।

৪.হাসপাতালে যত্রতত্র থুতু বা পানের পিক, গুটকা ফেলা নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

৫.তাছাড়া হাসপাতালে থাকছে কড়া পুলিশি প্রহরা।

৬.নিষেধজ্ঞার পরেও হাসপাতাল চত্তরে থুতু বা পানের পিক ফেলে নোংরা করলে অভিযুক্ত ব্যক্তির ভিজিটিং কার্ড বাজেয়াপ্ত করা হবে।

শহরে দক্ষিণেস্বর স্কাইওয়াক উদ্বোধন করার পর থেকেই মন্দিরে আগত দর্শণার্থীদের অপব্যবহারের ফলে তা অপরিছন্ন হতে শুরু করেছিল। কিন্তু শহরের সৌন্দর্যায়নের স্বার্থে কলকাতা পুরসভার মেয়র তথা রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের নির্দেশে কড়া পদক্ষেপ গ্রহণ করে কেএমডিএ কর্তৃপক্ষ। এবার রাজ্যের সরকারি হাসপাতাল গুলিকে পরিচ্ছন্ন করে তুলতে রাজ্য সরকার বদ্ধপরিকর হয়ে উঠেছে। পরিচ্ছন্নতা সংক্রান্ত এই বিধি নিষেধ এমনই ইঙ্গিত দিচ্ছে।