Date : 2022-05-25

কেন নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদ? হাইকোর্টে মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মামলা…

কলকাতা:- নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাশ হওয়ার পর থেকেই আগুন জ্বলতে শুরু করেছে উত্তর-পূর্ব ভারত জুড়ে। নয়া আইন অনুসারে বাংলাদেশ, আফগানিস্তান, পাকিস্তান থেকে শরণার্থী হিসাবে আগত শুধুমাত্র হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন, পারসি ও খ্রীষ্টান ধর্মাবলম্বি মানুষদের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। এই আইন অনুসারে মুসলিম শরনার্থীদের কথা উল্লেখ করা হয়নি। আর সেই নিয়েই দেশ জুড়ে আছড়ে পড়েছে ক্ষোভ ও প্রতিবাদের ঝড়। উত্তর-পূর্ব ভারত জুড়ে ব্যাপক বিক্ষোভের আঁচ এসে পড়েছে। গত ৭২ ঘন্টা ধরে রাজ্যে বেনজির তোলপাড়ের ঘটনায় টিভিতে বিজ্ঞাপন দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি মানুষকে আশ্বস্ত করে বলেন, বাংলায় এনআরসি, সিএএ কিছুই হবে না। সোমবার এনআরসি-এর প্রতিবাদে পথে মিছিল করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

“আমরা কারোর দয়ায় এই দেশের নাগরিক নই”: মুখ্যমন্ত্রী

রাজ্যে সাংবিধানিক প্রধান হয়ে মুখ্যমন্ত্রী কিভাবে সংসদে পাশ হওয়া আইনের বিরোধিতা করছেন? এই নিয়ে আজ হাইকোর্টে মামলা দায়ের করা হয় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে। নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদে পর পর ৩ দিন পথে নামবেন মুখ্যমন্ত্রী।

এই পরিপ্রেক্ষিতে আজ হাইকোর্টে সওয়াল করেন আইনজীবী সরজিৎ রায়চৌধুরী। মামলাকারীদের বক্তব্য নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল সংসদের দুই কক্ষে পাশ হওয়ার পর রাষ্ট্রপতি সই করে দিয়েছেন।

নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে পথে মুখ্যমন্ত্রী, মিছিল থেকে শপথ পাঠ

সেটি এখন আইন হয়ে গিয়েছে। রাজ্য সরকার কখনও এই ভাবে বিজ্ঞাপন দিয়ে আইনের বিরোধিতা করতে পারে না। টেলিভিশনে সরাসরি এনআরসি-র বিরুদ্ধে রাজ্য সরকারের বিজ্ঞাপন দেখে তার তীব্র সমালোচনা করেছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। বিজ্ঞাপন প্রত্যাহার করার জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে বার্তাও দিয়েছেন রাজ্যপাল।