Date : 2022-01-26

সিইও বদলের পরই টুইটারের প্রাইভেসি পলিসিতে বদল

রিমিতা রায়, নিউজ ডেস্ক : টুইটার থেকে পদত্যাগ করেছেন টুইটারের চিফ এক্সিকিউটিভ অফিসার জ্যাক ডরসি। সিইও পদে ডরসির মেয়াদ ২০২২ পর্যন্ত ছিল।তাহলে কি তাকে সরিয়ে দেওয়া হল? না। তিনি নিজেই মেয়াদ শেষের আগে দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তবে টুইটারের দায়িত্ব থেকে পুরোপুরি ভাবে সরে দাঁড়াচ্ছেন না তিনি।যতদিন না মেয়াদ শেষ হচ্ছে, ততদিন টুইটারের পরিচালক মণ্ডলীর বোর্ডে থাকবেন ডরসি। তবে সিইও পদে থাকবেন না তিনি। তাঁর ছেড়ে যাওয়া পদে বসেছেন পরাগ আগরওয়াল। পরাগ টুইটারের নতুন সিইও। পরাগ আগরওয়াল এতদিন টুইটারে সিটিও পদে নিযুক্ত ছিলেন। তিনি মুম্বইয়ের আইআইটির প্রাক্তনী। তবে টুইটারের সদ্য প্রাক্তন সিইও ডরসি তাঁর উত্তরসূরি পরাগ আগরওয়ালের প্রশংসায় পঞ্চমুখ।সিইও বদলের পরই এরপরই টুইটারের প্রাইভেসি পলিসিতে বড়সড় বদল এল। ছবি এবং ভিডিও শেয়ার করার ক্ষেত্রে একাধিক নিয়ম চালু হচ্ছে।

কোনও ব্যাক্তির ছবি পোস্ট করার আগে তাঁর অনুমতি নিতে হবে। তাঁর অনুমতি ছাড়া কোনও ছবি বা ভিডিও শেয়ার করা যাবে না।টুইটারের পক্ষ থেকে এই তথ্য জানানো হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে,এবার থেকে কারও অনুমতি ছাড়া তাঁর কোনও তথ্য সংক্রান্ত মিডিয়া ফাইল শেয়ার করা যাবে না। তবে কেন এই সিদ্ধান্ত? সুরক্ষার দিকে নজর রাথার জন্যই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। নিয়মে কি বলা হয়েছে? বাড়ির ঠিকানা, কোনও সরকারি পরিচয় পত্র, আধার কার্ডের মতো পরিচয় পত্রের নম্বর, ফোন নম্বর, মেল আইডি, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের তথ্য, ক্রেডিট কার্ডের তথ্য শেয়ার করা যাবে না টুইটারে। যদি কেউ এরকম কোনও পোস্ট সম্পর্কে অভিযোগ জানান, তাহলে সেই পোস্ট সরিয়ে দেবে টুইটার। এই কড়াকড়ির জন্য টুইটারের প্রাইভেসি পলিসি আরও জোরদার হতে চলেছে বলেই মনে করছেন অনেকে।