Date : 2021-10-26

দিনভর নাটকের অবসান, রাতে পাঁচিল টপকে চিদাম্বরমকে গ্রেফতার করল সিবিআই…

ওয়েব ডেস্ক: এ যেন ঠিক ঐতিহাসিক পুনরাবৃত্তি। ৯ বছর আগে কংগ্রেস জমানায় সোহরাবুদ্দিন সংঘর্ষ মামলায় গ্রেপতার করা হয়েছিল অমিত শাহকে। অমিত শাহ সেই সময় গুজরাতের মন্ত্রী ছিলেন। ১০ বছর পর মুদ্রার পিঠ যেন ঠিক উল্টে গেল। এবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর আসনে অমিত শাহ আর অভিযুক্তের স্থানে পি চিদম্বরম। তবে তফৎ শুধু একটাই, মামলায় অভিযুক্ত হওয়ার পর অমিত শাহ নিজেই সিবিআই দফতরে হাজির হয়ে ধরা দেন।

আর গতকাল পি চিদম্বরমের বিরুদ্ধে লুক আউট নোটিশ জারি করে সিবিআই বাড়ির পাঁচিল টপকে তাঁকে গ্রেফতার করে। উল্লেখ্য, আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় কংগ্রেস শীর্ষ নেতা পি চিদম্বরম ও তাঁর ছেলে কার্তি চিদম্বরম অভিযুক্ত হন। ২০১৫ থেকে ২০১৭-এর মধ্যে আইএনএক্স মিডিয়া গ্রুপে বিনিয়োগ নিয়ে ফরেন ইনভেস্টমেন্ট প্রোমোশন বোর্ডে অনিয়ম পরিলক্ষিত হওয়ার অভিযোগে এফআইআর দায়ের করে। চিদাম্বরম অর্থমন্ত্রী থাকার সময়ে ২০০৭ সালে ৩০৫ কোটি টাকা বিদেশ থেকে পেয়েছিল আইএনএক্স মিডিয়া গ্রুপ।

এরপর এফআইআরের ভিত্তিতে প্রিভেনশন অফ মানিল্যন্ডিং অ্যাক্টের ভিত্তিতে পি চিদম্বরমের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়। ইডি পাশাপাশি কোম্পানির দুই প্রতিষ্ঠাতা প্রাক্তন মিডিয়া ব্যারন পিটার মুখার্জি এবং ইন্দ্রাণী মুখার্জির বিরুদ্ধেও প্রিভেনশন অফ মানি লন্ডারিং অ্যাক্টে মামলা দায়ের করে। এই মামলায় অভিযুক্ত করা হয় আরও বেশ কয়েকজনকে। কালরাতে সেই আর্থিক কেলেঙ্কারির কারণে চিদম্বরমের বাড়ি থেকে তাঁকে গ্রেফতার করে সিবিআই। এদিন নেটিজেনদের মধ্যে চিদম্বরমকে গ্রেফতারের ঘটনা নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া ধরা পড়েছে।

আরও পড়ুন : পোখরানের অনুষ্ঠানে পরমানু অস্ত্র নিয়ে বিষ্ফোরক রাজনাথ সিং

দিনভর চেষ্টা করেও প্রাক্তন অর্থ মন্ত্রী পি চিদম্বরমের আইনজীবী কপিল সিব্বল শুনানি তালিকাভুক্ত করেন। কিন্তু অযোধ্যা মামলায় শুনানি চলায় সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ ব্যস্ত ছিলেন। এরপর রেজিস্ট্রি অফিসাররা রঞ্জন গগৈয়ের অফিসে দেখা করেন। এদিকে বেশ কয়েকটি জায়গায় চিদম্বরমের খোঁজ চালায় ইডি। চিদম্বরমের খোঁজ না মেলায় তাঁর বিরুদ্ধে ইডি ও সিবিআই যৌথ ভাবে ক্যাভিয়েট দাখিল করে যাতে তদন্তকারীদের কথা না শুনে কোন রায় না দিতে পারে সুপ্রিম কোর্ট।

আরও পড়ুন : আজ প্রধানমন্ত্রীর জাতির উদ্দেশ্যে ভাষণে এই ছ’টি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় উঠে এলো

দ্বিতীয়বারের জন্য বিচারপতি এন ভি রমনের কাছে দ্বারস্থ হলে কপিল সিব্বলকে বিচারপতি জানান, তাঁদের আবেদনে ত্রুটি রয়েছে। জরুরী ভিত্তিতে পিটিশন নথিভুক্ত করার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা চালান বর্ষীয়য়ান আইনজীবী কপিল সিব্বল। তিনি বলেন, ত্রুটি শুধরে নেওয়া হয়েছে। পিটিশন নথিভুক্ত করা হোক। এরপর রেজিস্ট্রির আধিকারিককে তলব করেন বিচারপতি রমন। রেজিস্ট্রির তরফে জানানো হয়, লাঞ্চের আগেই ত্রুটি শুধরে নেওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন : ছেলের ক্যান্সারের চিকিৎসার জন্য তুলে রাখা টাকা, কেরালা রিলিফ ফান্ডে দিল বাবা

আইনজীবী কপিল সিব্বল জানান তাঁর আইনজীবী তদন্তকারীদের সবরকম সহায়তা করা সত্ত্বেও তাঁর বিরুদ্ধে লুক আউট নোটিশ জারি করা হয়েছে। তাই দ্রুত পিটিশন তালিকাভুক্ত করতে চেয়েছেন কপিল সিব্বল। কিন্তু প্রধান বিচারপতি ব্যাস্ত থাকায় তিনি পিটিশন নথিভুক্ত করার সুযোগ পাননি কপিল সিব্বল। ফল স্বরূপ কাল রাতেই তাঁকে গ্রেফতার করা হয়। রাতভর জেরা করার পর আজ আদালতে পেশ করা হতে পারে পি চিদম্বরমকে।