Date : 2020-12-02

গৌতম বুদ্ধের দেহাংশ রাখা আছে কলকাতায়!….

কলকাতা: ভারতীয় জাদুঘরে রাখা আছে অসংখ্য প্রাচীন যুগের পাত্র। মিউজিয়ামে থাকা এসব পাত্রগুলি আপাত দৃষ্টিতে একই রকম, তবে বৌদ্ধযুগের পাত্রগুলির গায়ে ব্রাহ্মী লিপি খোদাই করা থাকে। বৌদ্ধবিহার থেকে প্রাপ্ত এমনই একটি পাত্র মিউজিয়ামে রাখা আছে যার ইতিহাস একটু আলাদা। কলকাতার ভারতীয় জাদুঘরে এই পাত্রটির মধ্যেই নাকি রাখা গৌতম বুদ্ধের দেহাবশেষ। বিশ্বে শান্তির বাণী প্রচারের ক্ষেত্রে বৌদ্ধধর্মের গুরুত্ব অপরিসীম। মৃত্যুর পর গৌতম বুদ্ধের দেহাংশ কোথায় রাখা আছে এই নিয়ে অনেক প্রশ্ন ছিল।

সরস্বতী পুজোর দিন পরীক্ষা নয়, কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়কে নির্দেশ উচ্চশিক্ষা দফতরের

১৮৯৮ সালে ডাব্লুউ সি পেপ নামের এক ব্রিটিশ এস্টেট ম্যানেজার হাজির হন পিপরাহওয়া গ্রামে। ভারত-নেপাল সীমান্তের এই গ্রামে খননকার্যের পর উদ্ধার হয় ছোট ছোট কয়েকটি পাত্র। পাত্রের মধ্যে থেকে উদ্ধার হয়েছে মূল্যবান কিছু পাথর আর মানুষের শরীরের কিছু হাড়ের টুকরো। মানুষের হাড়ের টুকরো দেখেই ঐতিহাসিকদের মধ্যে সন্দেহ হয়। পাত্রের গায়ে লেখা লিপি পাঠোদ্ধার করার পর ঐতিহাসিকদের কাছে উঠে আসে চাঞ্চল্যকর তথ্য। পাত্রের গায়ে লিপিতে পরিস্কার ভাবে লেখা ছিল এই দেহাংশ আসলে স্বয়ং গৌতম বুদ্ধের।

সংসদে আর মিলবে না আমিষ খাবার

বুদ্ধের ইতিহাস খুঁটিয়ে দেখলে জানা যাবে, মৃত্যুর পর তাঁর দেহাংশ আটটি পরিবারের মধ্যে ভাগ করে দেওয়া হয়। যার মধ্যে ছিল বুদ্ধের পিতৃবংশ শাক্যরাও। ঐতিহাসিকরা মনে করেছিলেন, সেই শাক্যদেরই প্রাপ্ত দেহাংশেরই খোঁজ পাওয়া গিয়েছিল। কিন্তু পরবর্তীকালে উঠে আসে আরও একটি নতুন তথ্য। বৌদ্ধধর্মের সঙ্গে সম্রাট অশোকের নাম অতপ্রোত ভাবে জড়িত। সম্রাট অশোক বুদ্ধদেবের পিতৃবংশ শাক্যদের থেকে এসব দেহাংশ নিয়ে এসে তাঁর তৈরি একটি বৌদ্ধস্তূপের মধ্যে রেখেছিলেন।ঐতিহাসিকরা মনে করছেন, পিপরাহওয়া গ্রামে বুদ্ধের দেহাংশ অশোকই রেখেছিলেন।