Date : 2022-08-10

হাই কোর্টে ধাক্কা পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের, ভোরেই তাঁকে এয়ার এম্বুলেন্সে নিয়ে যাওয়া হবে ভুবনেশ্বর

ষষ্ঠী চট্টোপাধ্যায়,সাংবাদিক : সোমবার ভোরে হাই কোর্টের বিচারপতি বিবেক চৌধুরী নির্দেশে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে ভুবনেশ্বর নিয়ে যাবে ইডি। সঙ্গে থাকবেন এস এস কে এম হাসপাতালের একজন চিকিৎসক এবং পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের আইনজীবী। রবিবার জরুরী ভিত্তিতে মামলার শুনানি গ্রহণ করেছিলেন হাইকোর্টের বিচারপতি। ভুবনেশ্বরের এই মস এইম স হাসপাতালের কার্ডিওলজিস্ট নেফ্রলজিস্ট এবং মেডিসিন বিভাগের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকায় স্বাস্থ্য পরীক্ষা করবেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের। সোমবার কলকাতা নগরদাইরা আদালতে এই সংক্রান্ত মামলার শুনানি থাকলেও উপস্থিত থাকতে পারবেন না পার্থ চট্টোপাধ্যায়। তবে সশরীরে না হলেও ভার্চুয়ালি থাকতে পারবেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে জেরার সময় তার আইনজীবী উপস্থিত থাকতে পারবেন না। নিম্ন আদালতের নির্দেশ খারিজ করে জানিয়ে দিল কলকাতা হাইকোর্ট। এর আগে পার্থ চট্টোপাধ্যায় কেজেরার সময় একজন আইনজীবীকে সঙ্গে থাকার ছাড়পত্র দিয়েছিল ব্যাঙ্কশাল আদালত। যার বিরোধীতায় জরুরি ভিত্তিতে হাইকোর্টে আবেদন জানায় তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। রবিবার জরুরী ভিত্তিতে শুনানির পর বিচারপতি বিবেক চৌধুরীর নির্দেশ, জেলার সময় পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে তার আইনজীবী উপস্থিত থাকতে পারবেন না। এছাড়াও এসএসকেএম হাসপাতালে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের চিকিৎসা সংক্রান্ত যে ছাড়পত্র নিম্ন আদালত দিয়েছিল তাকে চ্যালেঞ্জ করেও হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিল ই ডি। সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে বিচারপতি চৌধুরীর নির্দেশ, ভুবনেশ্বরের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দ্বারা পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের শারীরিক পরীক্ষা করাতে হবে। এইমস ভুবনেশ্বরের কার্ডিওলজি, নেফ্রলজি রেসপিরেটরি মেডিসিন ও এন্ড্রোকেনোলজি র বিশেষ চিকিৎসকরা দল গঠন করে পার্থ চট্টোপাধ্যায় শারীরিক পরীক্ষা করবেন। আজ সকালে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে ভুবনেশ্বর এইমসে নিয়ে যেতে হবে।
এসএসকেএম এর চিকিৎসক এবং এক আইনজীবীর উপস্থিতিতে পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে এয়ারপোর্টে নিয়ে যেতে হবে অ্যাম্বুলেন্সে করে। আগামীকাল তিনটের মধ্যে ওই বিশেষ মেডিকেল দলকে একটি রিপোর্ট দিতে হবে। রিপোর্টটি তদন্তকারী সংস্থা তথা ইডি এসএসকেএম এর আধিকারিক এবং পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের আইনজীবীদের তুলে দিতে হবে।
নিম্ন আদালত বিকেল চারটের সময় মামলা শুনানি করবেন। তার আগে পার্থ চট্টোপাধ্যায় কে আদালতে হাজির করতে হবে। ভার্চুয়ালি পার্থ চট্টোপাধ্যায় কে এজলাসে হাজির করা যাবে।

এছাড়াও বিচারপতি তার পর্যবেক্ষণে বলেছেন এসএসকেএম সম্পর্কে সাধারণ মানুষের ধারণা খুব একটা সুখকর নয়। এর আগেও দেখা গেছে শাসকদলের বহু নেতা মন্ত্রী তদন্তকারী সংস্থার জেরা এড়াবার জন্য এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এবং যখন দেখা গিয়েছে তাদের আর জেরা করার সম্ভাবনা নেই তখন সেই হাসপাতাল থেকে তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এমনকি এমন ঘটনাও ঘটেছে যে এসএসকেএম-এর লিখে দেওয়া মেডিকেল রিপোর্টের ভিত্তিতে অনেকে হাজিরা এড়িয়েছেন। পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের মতন একজন উচ্চ পদস্থ মন্ত্রীর ক্ষেত্রেও সেই সম্ভাবনা উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না। এমনটা যদি হয় তাহলে আইনের দেবী হাজার হাজার যোগ্য চাকরিপ্রার্থীর অশ্রুতে অভিশপ্ত হবেন।