Date : 2022-05-28

ন্যাশনাল মেডিক্যাল কমিশনের চরক শপথেই মান্যতা – প্রতিবাদে এআইডিএসও

সিদ্ধান্তেই ঝড় উঠেছিল। এবার সেই বিতর্কিত ‘চরক শপথের’ ওপরেই চূড়ান্ত শিলমোহর দিল ন্যাশনাল মেডিক্যাল কমিশন। তাদের পক্ষ থেকে নির্দেশিকা জারি করে জানিয়ে দেওয়া হল মেডিক্যাল পড়ুয়াদের সেশনের শুরুতে চরক শপথই নিতে হবে। আর এই সিদ্ধান্তের চরম বিরোধিতা করে পথে নাম এআইডিএসও।

এআইডিএসওর পক্ষ থেকে শনিবার হেলথ ইউনিভার্সিটির সামনে বিক্ষোভ প্রদর্শন করা হল। আয়োজন করা হয় এক বিক্ষোভ মিছিলের। যে মিছিল থেকে স্পষ্ট জানানো হয় এই সিদ্ধান্ত তারা মানছেন না।

তাদের লেখা প্ল্যাকার্ডেও ধরা পড়ল সে কথা। একই সঙ্গে ন্যাশনাল মেডিক্যাল কমিশনের সিদ্ধান্তের একটি প্রিন্ট আউটকে জ্বালিয়ে তারা বলেন এই কালা সিদ্ধান্ত তারা মেনে নেবেন না।

সংগঠনের পক্ষ থেকে সামস মুশাফির বলেন আসলে এই সিদ্ধান্ত স্বাস্থ্য শিক্ষা ব্যবস্থায় গৈরিকীকরণের নামান্তর। এত দিন ধরে চলে আসা হিপোক্রেটিক ওথকে বদলে চরক শপথকে মান্যতা দেওয়া অত্যন্ত নিন্দনীয়। এই সিদ্ধান্ত বদল না করা অবধি তারা আন্দোলন চালিয়ে যাবেন।

এই প্রসঙ্গে উল্লেখ্য শুধু চরক শপথই নয়। আরও এক সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে এনএমসির তরফে। আরও বলা হয়েছে পড়ুয়াদের এক সপ্তাহের যে ফাউন্ডেশন কোর্স চলবে সেখানে বাধ্যতামূলক করা হল যোগ ব্যয়ামের অনুশীলনকে। তার সাথে বাধ্যতামূলক ভাবে সমস্ত মেডিক্যাল কলেজে পড়ুয়াদের যোগা করতে হবে ১২ই জুন থেকে ২১ শে জুন, দশদিন। উল্লেখ্য ১২ই জুন আন্তর্জাতিক যোগ দিবস।

তবে সত্যিই কি বদলানো হবে এই সিদ্ধান্ত? তার উত্তর সময় দেবে তবে প্রতিবাদ যে জারি থাকবে তা স্পষ্ট